বরগুনায় নিরাপদ নৌ ভ্রমণের দাবিতে মানববন্ধন

144331_bangladesh_pratidin_receive.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : নিরাপদ নৌ ভ্রমণ নিশ্চিত করাসহ ৭ দফা দাবিতে বরগুনায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে জেলা যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ কমিটি। আজ সোমবার বেলা পৌনে ১১টায় বরগুনা প্রেসক্লাবের সামনে কর্মসূচি পালন করা হয়।

যাত্রীদের ৭ দফা দাবিগুলো হল- দুর্ঘটনায় নিহতদের যৌক্তিক ক্ষতিপূরণ দিতে হবে, আহতদের উন্নত চিকিৎসা নিশ্চিত করতে হবে, প্রত্যেক লঞ্চে জনপ্রতি লাইফ জ্যাকেটের ব্যবস্থা রাখতে হবে, আধুনিক অগ্নিনির্বাপক প্রযুক্তি নিশ্চিত করতে হবে, প্রতি লঞ্চে দক্ষ ও প্রশিক্ষিত কর্মী নিশ্চিত করতে হবে, অতিরিক্ত যাত্রী ও মালামাল বহন করা যাবে না ও প্রতি বছর লঞ্চের ফিটনেস চেক করতে হবে। এছাড়া সমাবেশে বক্তারা বলেন, লঞ্চ কর্তৃপক্ষ, বিআইডব্লিউটির যথেষ্ট অবহেলা রয়েছে। তাই এই দুর্ঘটনার দায় তারা এড়াতে পারেন না।

আরও পড়ুন : ৭ কলেজের বিষয় ও কলেজ চয়েসের ফল হতে পারে চলতি সপ্তাহে

কর্মসূচি চলাকালে বক্তব্য রাখেন, বরগুনা জেলা যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ কমিটির সভাপতি এডভোকেট সঞ্জীব দাস, সাধারণ সম্পাদক সোহেল হাফিজ, লোক বেতারের পরিচালক মনির হোসেন কামাল, বরগুনা জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সেলিনা আক্তার, সাংবাদিক চিত্তরঞ্জন শীল, প্রিন্ট মিডিয়া সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান, সাংবাদিক রেজাউল ইসলাম টিটু,, জাগোনারীর ডিউক ইবনে আমিনসহ সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সকল যাত্রীবাহী যানবাহন কর্তৃপক্ষের কাছেই যাত্রীদের তথ্য থাকে। কিন্তু লঞ্চ কর্তৃপক্ষের কাছে যাত্রীদের কোনো তথ্য নেই, এ কারণে ক্ষতিগ্রস্তদের সঠিক পরিমাণ নির্ধারণ করা সম্ভব হয় না। আমাদের দাবি এরপর যাত্রীদের পূর্ণাঙ্গ তথ্য নিশ্চিত করতে হবে। এছাড়াও যাত্রীদের পর্যাপ্ত জীবনরক্ষাকারী সরঞ্জাম নিশ্চিত করতে হবে। সকল যাত্রীদের তালিকা ও বীমা বাধ্যতামূলক থাকতে হবে।

বক্তারা আরও বলেন, লঞ্চ মেরামতের পর অভিজ্ঞ ইঞ্জিনিয়ার দ্বারা ইঞ্জিন পরীক্ষা করাতে হবে। চালক ও স্টাফদের গাফলতির কারণে ঝালকাঠি ট্রাজেডিতে হতাহত বেশি হয়েছে। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে অপরাধীদের বিচারের দাবী জানাচ্ছি।

বরগুনা জেলা যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ কমিটির আয়োজনে এই মানববন্ধনে আরও অংশগ্রহণ করে বিডি ক্লিন, দুর্বার, সাইক্লিস্ট সোসাইটি বরগুনা, সাইন্স সোসাইটি বরগুনা,  লোকবেতার, জাগোনারীসহ সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠন। প্রসঙ্গত, গত ২৩ ডিসেম্বর ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে বরগুনাগামী এমভি অভিযান-১০ এ অগ্নিকাণ্ডে ৪২ জন নিহত হয়। এরপর থেকেই প্রশ্ন ওঠে লঞ্চ ব্যবস্থাপনায়।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top