স্বাধীনতার ৫০ বছরে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা বড় লজ্জার: ফখরুল

-মহাসচিব-মির্জা-ফখরুল-ইসলাম-আলমগীর.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট: মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ানের (র‌্যাব) বর্তমান ও সাবেক সাত কর্মকর্তার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছরে বড় লজ্জার বলে উল্লেখ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বৃহস্পতিবার মহান বিজয় দিবসে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে পুস্পমাল্য অর্পণের পর তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, আমরা মনে করি যে, এটা হচ্ছে বাংলাদেশের জন্য সবচেয়ে বড় লজ্জার। এই পঞ্চাশ বছর পরে আমাদের একটি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের নিষেধাজ্ঞা পেতে হচ্ছে এবং আমরা গণতন্ত্রের বাইরের একটি রাষ্ট্র সেটাকে আজকে বিশ্বের সামনে তুলে ধরা হয়েছে। যেটা আমাদের জন্য লজ্জার। দুর্ভাগ্যজনকভাবে আজকে যারা ক্ষমতা দখল করে বসে আছে তাদের কারণেই এই অবস্থা বাংলাদেশের আজকে হয়েছে।

আরও পড়ুন : পরবর্তী প্রধান বিচারপতি কে হচ্ছেন

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকে আমরা এখানে শপথ নিয়েছি যে, এদেশে সব জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে, সব রাজনৈতিক শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করে জনগণের আন্দোলনের মধ্য দিয়ে, অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে এই সরকারকে পরাজিত করে এখানে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করব। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করব এবং একটা মুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হবো ইনশাল্লাহ।

এ সময় দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান, আবদুস সালাম, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব মাহবুবউদ্দিন খোকন, খায়রুল কবির খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা শ্যামা ওবায়েদ, মাসুদ আহমেদ তালুকদার, মীর সরফত আলী সপু, ডা. রফিকুল ইসলাম, শামীমুর রহমান শামীম, সেলিমুজ্জামান সেলিম, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, নাজিম উদ্দিন আলম, ইশরাক হোসেন, আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন, মহানগর বিএনপির আমিনুল হক, রফিকুল আলম মজনু, মুক্তিযোদ্ধা দলের সাদেক আহমেদ খান, যুবদলের সাইফুল ইসলাম নীরব, এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন, ছাত্রদলের ফজলুর রহমান খোকন, ইকবাল হোসেন শ্যামল, সাইফ মাহমুদ জুয়েল, মহিলা দলের আফরোজা আব্বাস, জেবা খান, শ্রমিক দলের আনোয়ার হোসেইন, জাসাসের হেলাল খান, জাকির হোসেন রোকন, ওলামা দলের শাহ নেসারুল হক, তাঁতী দলের আবুল কালাম আজাদ, ড্যাবের ডা. আবদুস সালাম প্রমুখ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top