৫ টাকা বাড়তির জন্য শিক্ষককে বাস থেকে ফেলে দেওয়া হয়

bus-bg-20211130143929.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : চট্টগ্রামের অক্সিজেন থেকে পুরাতন রেলস্টেশনের বটতলী পর্যন্ত গাড়ি ভাড়া ১৫ টাকা। কিন্তু অক্সিজেন থেকে নিউমার্কেট পর্যন্ত চলাচলকারী সৌরভ পরিবহনের ৮ নং সিটি সার্ভিসের চালক-হেলপার ও কন্ডাকটর মিলে ২০ টাকা ভাড়া চায়। নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে ৫ টাকা বেশি চাওয়া নিয়ে প্রাইমারি স্কুল শিক্ষক রহমত উল্লাহর সঙ্গে হেলপার ও কন্ডাকটরের তর্কাতর্কি হয়। একপর্যায়ে স্কুল শিক্ষক বটতলী এলাকায় নেমে যেতে চাইলে শার্টের কলার ধরে আটকে রেখে নামতে দেয়নি হেলপার। এরপর তাকে বাসের মধ্যেই মারধর করা হয়। পরে কোতোয়ালী থানার রেলস্টেশন এলাকায় পৌঁছালে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে স্কুল শিক্ষককে ফেলে দেয় বাসের কন্ডাকটর।

এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। র‌্যাব বলছে, আটক তিনজন ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। বাস চালক ও হেলপাররা মাদক নিতেন বলেও জানিয়েছে র‌্যাব।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) চান্দগাঁও কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এমএ ইউসুফ। তিনি বলেন, মাত্র ৫ টাকার জন্য আসামিরা এই ঘটনা ঘটিয়েছে।

তিনি বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িত বাসের কন্ডাকটর মো. হোসেনকে (২৫) কোতোয়ালী, হেলপার মো. মাহিন (১২) ও চালক মো. লিটনকে বায়েজিদে থেকে সোমবার (২৯ নভেম্ব) আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ভিকটম রহমত উল্লাহর ভাই বাদীয় হয়ে কোতোয়ালী থানার একটি মামলা দায়ের করবেন।

আরও পড়ুন : আফ্রিকা থেকে আসা ২৪০ জন নিখোঁজ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

এমএ ইউসুফ বলেন, গত ২৭ নভেম্বর দুপুরে ভিকটিম রহমত উল্লাহ্ (৩৮), পিটিআই যাওয়ার উদ্দেশ্যে অক্সিজেন হতে অক্সিজেন টু নিউ মার্কেট সৌরভ নামীয় ৮ নং সিটি সার্ভিস বাস যোগে রওয়ানা করেন। এ সময় অতিরিক্ত ভাড়া আদায় নিয়ে বাসের কন্ডাকটরের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে ভিকটিম রহমত উল্লাহ স্টেশন রোডে বটতলী এলাকায় নেমে যেতে চাইলে তাকে নামতে না দিয়ে শার্টের কলার চেপে ধরে রাখে নামতে দেওয়া হয়নি। ড্রাইভারও বাস চালাতে থাকেন। স্কুল শিক্ষক বারবার বলার পরও বাস থেকে নামতে দেয়নি। তখন স্কুল শিক্ষক বাস থেকে নামার জন্য দরজার কাছে যান। বাস থেকে নামার জন্য দরজায় একটা শব্দ করেন। কিন্তু বাস না থামিয়ে কন্ডাকটর ও হেলপার এসময় স্কুল শিক্ষককে মারধর করেন। বাসটি পুরাতন রেলস্টেশন এলাকায় পৌঁছালে আসামি মো. হোসেন ভিকটিমকে চলমান বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে রাস্তায় ফেলে দেয়। এতে তার বাম পায়ে ও পাঁজরের হাড় গুরুতর ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বর্তমানে তাকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ঘটনা ঘটিয়ে বাসের চালক, হেলপার, কন্ডাকটর পালিয়ে যায়।

তিনি বলেন, ঘটনার পরপরই তিনজনই পালিয়ে যায়। গোয়েন্দা কার্যক্রমের ভিত্তিতে প্রথমে সোমবার বিকেলে মাহিনকে আটক করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে হোসেন ও লিটনকে আটক করা হযেছে।

ভিকটিমের চিকিৎসার ব্যাপারে র‌্যাবের এ কর্মকর্তা বলেন, বাসের মালিকপক্ষ শিক্ষককের চিকিৎসায় সহায়তা করেছে। এছাড়া র‌্যাবের পক্ষ থেকেও কিছু সহায়তা করা হবে। আহত রহমত উল্লাহ চট্টগ্রাম নগরীর পাঁচলাইশ এলাকার হাবিবউল্লাহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top