ফেসবুকের পোস্ট নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়াল গ্রামবাসী, আহত ৪০

download-5-16.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দেওয়া একটি পোস্টকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ ৪০ জন আহত হয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। আজ শুক্রবার সকালে তাদের গোপালগঞ্জ জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) বিকালে উপজেলার কলসি ফুকরা গ্রামে তিন ঘণ্টাব্যাপী এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ সময় অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। আহতদের কাশিয়ানী উপজেলা ১০০ শয্যা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, সম্প্রতি ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ফেসবুকে পোস্ট দেয় পরাজিতরা। সেই পোস্টকে কেন্দ্র করে বিজিতরা তাদের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। পরে তা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে রূপ নেয়। মূলত প্রার্থীদের সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়ান। দুলু সর্দারের সমর্থকরা পোস্ট দিলেও পরে তা ডিলিট করা হয়। কিন্তু এর মাঝেই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী এস এম আবু বক্কার সরদারের সমর্থকরা এই পোস্ট নিয়ে চড়াও হন। দু’পক্ষের লোকজন লাঠিসোটা, ঢাল-সড়কি, রামদাসহ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হামলা চালান। তিন ঘণ্টাব্যাপী এ সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ৪০ জন আহত হয়েছেন। এ সময় উভয়পক্ষের প্রায় অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি ভাঙচুর করা হয়।

আরও পড়ুন : বিসিবির চাকরি ছেড়ে দিলেন ফিজিও জুলিয়ান

খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মুকসুদপুর সার্কেল) মো. শাহিনুর চৌধুরী, ইউএনও রথীন্দ্রনাথ রায়, ওসি মোহাম্মাদ মাসুদ রায়হান ও ইন্সেপেক্টর (তদন্ত) মুহাম্মদ ফিরোজ আলমসহ বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য ঘটনাস্থলে ছুটে যান। এ সময় পুলিশ টিয়ারশেল ও ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাস্থল থেকে ৯ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

কাশিয়ানী থানার ওসি মোহাম্মাদ মাসুদ রায়হান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এখন পর্যন্ত কোনো পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়ের হয়নি। এলাকায় থম থমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। সেখানে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top