বেতন না পাওয়ায় খুমেক হাসপাতালে মল ছিটালো হরিজনরা

WhatsApp-Image-2021-11-25-at-3.52.55-PM.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক:  খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আউটসোর্সিং কর্মচারী হরিজনরা হাসপাতালের প্রায় সকল ইউনিট ও পরিচালকের কার্যালয়ের সামনে মানুষের মল ছিটিয়ে ধর্মঘট করেছে।

আজ বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) দুপুর ৩ টায় তারা অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট শুরু করে।

এসময়ে তারা মানুষের তাজা মল বালটি ভরে হাসপাতালে ছিটানো শুরো করে। প্রায় সব গুরুত্বপূর্ণ কক্ষের সামনে, প্রধান ফটকের সামনে, রোগী রোগী ভর্তি করার অফিসের সামনে, রোগীদের থাকার ওয়ার্ড ও পরিচালকের কক্ষের সামনে মল ছিটায়। সেই মল ঝাড়ু দিয়ে মেলিয়ে দেয়। পরে বিকেল ৫ টার দিকে তারা স্থান ত্যাগ করে।

এ অবস্থায় হাসপাতালে নতুন রোগী ভর্তি হতে না পেরে ফিরে যাচ্ছেন ও ওয়ার্ডে থাকা রোগীরা দুর্গন্ধে অতিষ্ট হচ্ছেন।

হরিজনরা জানান, গত ৫ মাস ধরে হাসপাতালে থেকে কোন প্রকার বেতন-ভাতা না দেওয়ার কারনে তারা এ ধর্মঘট শুরু করেছে।

জানা গেছে, খুমেক হাসপাতালে গত ১১ মাস ধরে ৪৫ জন হরিজন আউটসোর্সিং কর্মচারী হিসেবে কাজ করছেন। প্রথম ৬ মাস বেতন পেলেও গত ৫ মাস তারা কোন বেতন পাননি। করোনা কালে সরকারের সিদ্ধান্তে তাদের নিয়োগ করেছিল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সেই সময়ে সরকারের পক্ষ থেকে ৬ মাসের বেতন দেওয়া হয়েছিল। তবে হাসপাতালে তাদের প্রয়োজন থাকায় পরবর্তিতে কর্তৃপক্ষ তাদের রেখে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

ধর্মঘটকারীরা জানান, হাসপাতালে বর্তমানে হরিজন সম্প্রদায়ের বাইরেও তিন শতাধিক আউটসোর্সিং কর্মচারী আছে। তাদের বেতনের একটি অংশ কেটে রেখে হরিজনদের বেতন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।

আন্দোলনকারীদের মধ্যে অন্যতম একজন বিধান হরিজন । তিনি বলেন, গত ৫ মাস ধরে আমরা শুধু কাজই করে যাচ্ছি। আমাদের কোন বেতন-ভাতা দেওয়া হচ্ছে না। কর্তৃপক্ষ শুধু আশ্বাস দিয়েই আমাদের কাজ করাচ্ছেন। অবশেষে আমরা ধর্মঘট করতে বাধ্য হয়েছি।

তবে এ ঘটনায় হাসপাতালের কোন দায়িত্বশীল ব্যক্তি আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দিতে রাজি হননি। না প্রকাশ না করার শর্তে এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, আউটসোসিং কর্মচারীদের বেতন প্রায়  চার মাস বন্ধ রয়েছে। তাদের বেতন এলে সেখান থেকে সম্বনয় করে হরিজনদের বেতন দেওয়া হবে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top