রেকর্ড দামে বিক্রি হলো আইনস্টাইনের পাণ্ডুলিপি

dhakapost-20211125082546.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : অ্যালবার্ট আইস্টাইন। থিয়োরি অফ রিলেটিভিটি বা আপেক্ষিকতাবাদের জনক। দুনিয়া বদলে দেওয়া এই বিখ্যাত তত্ত্বের উৎস যে পাণ্ডুলিপি তা বিক্রি হলো অবাক দামে। ফ্রান্সের প্যারিসে নিলামে উঠানো হয়েছিল বিরল ওই পাণ্ডুলিপিটি।

৫৪ পাতার ওই পাণ্ডুলিপিটি ঘিরে নিলামের শুরু থেকেই কৌতূহল ছিল। মনে করা হচ্ছিল, সাড়ে তিন মিলিয়ন ডলারের মতো দাম উঠতে পারে ওই পাণ্ডুলিপির। কিন্তু সেই অনুমানকে একেবারেই ভুল প্রমাণ করে তা বিক্রি হলো ১৩ মিলিয়ন ডলারে। অর্থাৎ বাংলাদেশি মুদ্রায় ১১১ কোটি ৬৪ লাখ টাকার বেশি। ব্রিটিশ নিলাম সংস্থা ‘ক্রিস্টিজ’ অবশ্য জানিয়েছে, কে ওই পাণ্ডুলিপিটি কিনলেন তা গোপন রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন : মা-মেয়ের গলা কাটা লাশ উদ্ধার 

কতটা গুরুত্বপূর্ণ এই পাণ্ডুলিপি

ক্রিস্টিজ জানাচ্ছে, আইনস্টাইন তার কাজের প্রাথমিক খসড়া আলাদা করে সংরক্ষণ করতেন না। কাজ মিটলেই সেটির অবস্থান হতো ময়লার ঝুড়িতে। এই পাণ্ডুলিপিটিরও সেই অবস্থাই হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে মহাকর্ষ সম্পর্কে চিরকালীন ধারণাকে আমূল বদলে দেবে যে তত্ত্ব, তারই আগাম গবেষণার সাক্ষী হিসেবে ওই ৫৪ পাতার পাণ্ডুলিপিটির গুরুত্ব অপরিসীম।

ক্রিস্টিজের দাবি, বিংশ শতাব্দীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বৈজ্ঞানিক নথি। আইনস্টাইনের লেখা আর কোনো পাণ্ডুলিপির এত দাম ওঠেনি আগে।

তবে পাণ্ডুলিপির পুরোটাই আইনস্টাইনের নিজের হাতে লেখা নয়। ২৬ পাতা লিখেছিলেন নোবেলজয়ী বিজ্ঞানী। বাকিটা লিখেছিলেন তার বন্ধু মিশেল বেসো। শেষ পর্যন্ত বেসোর উদ্যোগেই সংরক্ষিত হয়েছিল পাণ্ডুলিপিটি। জ্যোতির্পদার্থবিদ এটিন্নে ক্লেইন জানিয়েছেন, এই পাণ্ডুলিপি থেকে পরিষ্কার, রাতারাতি তার জগদ্বিখ্যাত থিউরিকে প্রমাণ করতে পারেননি আইনস্টাইন। ওই সত্যের কাছে পৌঁছতে যে দীর্ঘ পরিশ্রম করতে হয়েছিল তারই প্রমাণ ছড়িয়ে রয়েছে ওই পাণ্ডুলিপির পাতায় পাতায়।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top