জনরোষের মুখে ক্ষমা চাইলেন রিচা

richa-risingbd-2211240926.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : বলিউড অভিনেত্রী রিচা চাড্ডার এক টুইটকে কেন্দ্র করে নেটদুনিয়ায় সমালোচনার ঝড় বইছে। রীতিমতো জনরোষে পড়েছেন; শুধু তাই নয়, তার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক চাপও তৈরি হয়েছে। আর এ পরিস্থিতিতে ক্ষমা চেয়েছেন এই নায়িকা।

মূল বিষয় হলো, ভারতীয় সেনা বাহিনীর কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল উপেন্দ্র দ্বিবেদী এক বক্তব্যে বলেন—‘পাক অধিকৃত কাশ্মীর পুনরেুদ্ধারের জন্য আমরা পুরোপুরি প্রস্তুত। আমরা সরকারের নির্দেশের অপেক্ষায় রয়েছি। খুব শিগগির এই অপারেশন আমরা শেষ করব। তার আগে যদি পাকিস্তান যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে, তার জবাব আলাদা হবে। আর তা তারা কল্পনাও করতে পারবে না।’

উপেন্দ্র দ্বিবেদীর এই বক্তব্য কেউ কেউ টুইটে ছড়িয়ে দিয়েছেন। তারই একটি টুইট শেয়ার করে রিচা চাড্ডা লিখেন— ‘গালওয়ানের কথা মনে আছে?’

আরও পড়ুন : জাহান্নামের শাস্তি হবে অপ্রতিরোধ্য

২০২০ সালে গালওয়ানে চীনের সঙ্গে সংঘর্ষে খানিকটা বেকায়দায় পড়েছিল ভারতীয় সেনারা। চীনা সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় সেনা সদস্য মারা গিয়েছিল। আবার ভারতীয় ভূ-খণ্ডের কিছুটা অংশ ওই সময়ে চীনের দখলে চলে যায় বলেও দাবি বিরোধীদের। রিচা সেই স্মৃতি উসকে দিয়ে সেনা কর্মকর্তাকে খোঁচা দিয়েছেন। আর এতেই বাঁধে বিপত্তি।

ভারতীয় নেটিজেনদের বড় একটি অংশ ক্ষেপে যান রিচার বিরুদ্ধে। তার দেশপ্রেম নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। নিজ দেশের সেনা বাহিনীর সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ধিক্কারের মুখে পড়েন রিচা। এখানেই শেষ নয়, ক্ষমতাসীন বিজেপি সদস্য মঞ্জিন্দ্র সিংহ শীর্ষ বিষয়টি চেপে ধরেছেন। রিচাকে উদ্দেশ্য করে এক টুইটে তিনি লিখেন, ‘এটা অবমাননাকর টুইট। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সরিয়ে নেওয়া উচিত। দেশের সেনাবাহিনীর অসম্মান কখনো মেনে নেওয়া যায় না।’

সব সমালোচনার আগুন নেভাতে বিষয়টি নিয়ে ক্ষমা চেয়েছেন রিচা চাড্ডা। নতুন এক টুইটে এ অভিনেত্রী বলেন—‘এই তিনটি শব্দ দিয়ে কাউকে আঘাত করার কোনো উদ্দেশ্য আমার ছিল না। যদি কেউ কষ্ট পেয়ে থাকেন, তবে আমাকে ক্ষমা করে দেবেন। আমার নানা ভারতের সেনা বাহিনীর অংশ ছিলেন। তিনি লেফটেন্যান্ট কর্নেল হিসেবে অবসর নিয়েছেন। ১৯৬০ সালে চীনের সঙ্গে যুদ্ধের সময় পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছিলেন। আমার মামাও একজন প্যারাট্রপার ছিলেন।’

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top