অলৌকিকভাবে বেঁচে গেল মায়ের কোলে থাকা সেই শিশুটি

image-475636-1634111910.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় সন্তানসহ ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দেন মা। এ সময় ঘটনাস্থলে মায়ের মৃত্যু হলেও অলৌকিকভাবে তার দুই বছরের মেয়েটি বেঁচে গেছে।

বুধবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার রেলওয়ে স্টেশনসংলগ্ন কাটাপুল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের পরিচয় জানা যায়নি। স্থানীয়রা দ্রুত গুরুতর আহত শিশুটিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। অবস্থার অবনতি হলে আহত শিশুটিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকালে স্টেশনে বহু যাত্রী বিভিন্ন ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করছিল। এ সময় স্টেশনে ময়মনসিংহগামী বলাকা ট্রেন এসে দাঁড়ায়। ট্রেন ছেড়ে একটু সামনে যেতেই বোরকা পরিহিত অজ্ঞাত (২৫) এক নারী একটি কন্যাশিশু কোলে নিয়ে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দেন।

মুহূর্তেই গলা কেটে ওই নারীর মৃত্যু হয়। তবে অলৌকিকভাবে শিশুটি বেঁচে যায়। পরে স্থানীয়রা দ্রুত গুরুতর আহত শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে যান। শিশুটির বাম হাত মারাত্মক জখম হয়েছে।

শ্রীপুর পৌরসভার সংরক্ষিত নারী সদস্য (সংরক্ষিত ১, ২ ও ৩ এলাকা) নাজমা বেগম হাসপাতালে গিয়ে শিশুটির খোঁজ নেন।

এ সময় তিনি জানান, শিশুটির কোনো স্বজন এখনও পাওয়া যায়নি। চিকিৎসা শেষে যদি কোনো স্বজন শিশুটিকে নিতে না আসে, তা হলে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থার মাধ্যমে শিশুটির লালন-পালনের দায়িত্ব নিতে চাই।

স্থানীয়রা জানান, সকাল সাড়ে ৬টার দিকে শ্রীপুরের কাটাপুল এলাকায় ঢাকা থেকে ময়মনসিংহগামী বলাকা এক্সপ্রেস চলন্ত ট্রেনের নিচে শিশুকন্যাকে নিয়ে ঝাঁপ দেন ওই নারী। এতে ঘটনাস্থলেই ওই নারী মারা যান। আহতাবস্থায় দুই বছর বয়সি মেয়েটিকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।

এ বিষয়ে শ্রীপুর রেলওয়ে স্টেশনমাস্টার হারুনুর রশিদ বলেন, খবর পেয়ে রেলওয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। শিশুটির হাত ও মাথা থেঁতলে গেছে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top