ক্রিকেট খেলতে গিয়ে সব হারালেন মানিক

manik-20210915120904.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট  : নিয়মিত ক্রিকেট খেলতেন সারওয়ার জাহান মানিক। রাজশাহীর ক্লাব মহুয়াবাগানের হয়ে খেলেছেন প্রথম বিভাগ। ৩২ বছর বয়সী মানিকের ক্রিকেটই ছিল ধ্যান-জ্ঞান। প্রতিষ্ঠা পেতে নিজেকে রেখেছিলেন কঠোর অনুশীলনের ভেতর। যে ক্রিকেট আঁকড়ে ধরে জীবন গড়তে চেয়েছিলেন, সেই ক্রিকেটই কাল হলো মানিকের।

অনুশীলনের সময় ডাবগাছে আটকে গিয়েছিল বল। সেটি নামাতে গিয়ে পড়ে যান তিনি। এরপরই ভেঙে যায় তার মেরুদণ্ডের হাড়। সেই থেকে শরীরের নিচের অংশ পুরোপুরি অবশ। হারিয়ে ফেলেছেন চলাচলের শক্তি।

২০১৯ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর দুর্ঘটনার পর থেকে বিছানায় মানিক। চিকিৎসা করাতে গিয়ে পরিবার এখন সর্বশান্ত। দু দফা ভুল অপারেশনে ক্ষীণ হচ্ছে উঠে দাঁড়ানোর আশা। তবুও আশা ছাড়েনি পরিবার। ধার-দেনা করে চালিয়ে নিচ্ছে চিকিৎসা। এখন তার আরও উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন। আর তাতে ব্যয় হবে অন্তত ২৫ লাখ টাকা। এই টাকা যোগাড় করা তার পরিবারের পক্ষে অসম্ভব।

সারওয়ার জাহান মানিক নগরীর সপুরা পবাপাড়া এলাকার মোস্তাক আলীর ছেলে। দুই ভাইয়ের মধ্যে বড় তিনি। ক্রিকেট ছাড়াও তায়কোয়ান্দো জেলা দলের ৫০-৫৪ ওজন শ্রেণিতে খেলেছেন বহুদিন। নর্থবেঙ্গল স্পোটিং ক্লাবের হয়ে বাস্কেটবল খেলেছেন টানা ১০ বছর। শখে খেলতেন ফুটবলও।

অনুশীলনের সময় ডাবগাছে আটকে গিয়েছিল বল। সেটি নামাতে গিয়ে পড়ে যান তিনি। এরপরই ভেঙে যায় তার মেরুদণ্ডের হাড়। সেই থেকে শরীরের নিচের অংশ পুরোপুরি অবশ।
খেলাধুলার পাশাপাশি ছোটখাটো কাজ করে সংসারে হাল ধরার চেষ্টা করছিলেন। প্রথমে সামাজিক বন বিভাগে চাকরি নেন মাস্টাররোলে। সেটি ছেড়ে যুক্ত হন একটি বেসরকারী কোম্পানিতে। কিছুদিন সংবাদপত্রে পেস্টিং বিভাগের কর্মী হিসেবেও কাজ করেছেন তিনি।

বিয়ে করে সংসারও গড়েছিলেন। কিন্তু বিয়ের ৯ মাসের মাথায় দুর্ঘটনায় পড়ে সবকিছু তছনছ হয়ে যায়। আপন ঘরই এখন পৃথিবী মানিকের।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top