আফগানিস্তানের কান্দাহারে তালেবানবিরোধী বিক্ষোভ

download-1-5.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : আফগানিস্তানের কান্দাহার শহরের একটি আবাসিক সেনা কলোনির বাসিন্দাদের চলে যেতে বলার পর মঙ্গলবার কয়েক হাজার লোক তালেবান শাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখিয়েছে। দেশটির সাবেক এক সরকারি কর্মকর্তা এ কথা জানিয়েছেন। স্থানীয় টেলিভিশনেও কান্দাহারে হওয়া বিক্ষোভের ফুটেজ দেখা গেছে।

বিক্ষোভের প্রত্যক্ষদর্শী সাবেক ওই সরকারি কর্মকর্তা জানান, কলোনিটি থেকে প্রায় তিন হাজার পরিবারকে চলে যেতে বলা হয়েছে। এর প্রতিবাদে বিক্ষোভকারীরা কান্দাহারের গভর্নরের বাসভবনের সামনে একত্রিত হন বলে জানায় রয়টার্স।

বিক্ষোভকারীরা শহরটির একটি সড়কও অবরোধ করে বলে স্থানীয় টেলিভিশনের ফুটেজে দেখা গেছে। যে কলোনি থেকে বাসিন্দাদের চলে যেতে বলা হয়েছে সেখানে মূলত আফগানিস্তানের সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত জেনারেল ও নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মকর্তাদের পরিবারের বাস।

এ পরিবারগুলোর অনেকে শহরটিতে প্রায় ৩০ বছরের বেশি সময় ধরে বসবাস করছেন। তাদের বাসা ছাড়তে তিন দিন সময় দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সাবেক ওই সরকারি কর্মকর্তা। এ উচ্ছেদের নোটিশ প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া জানতে তালেবানের মুখপাত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তাৎক্ষণিকভাবে তার সাড়া পাওয়া যায়নি।

ঝড়ের বেগে আফগানিস্তানের একের পর এক প্রাদেশিক রাজধানী দখলের পর মাস খানেক আগে তালেবান রাজধানী কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয়। এরপর তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন শহরে বিক্ষিপ্তভাবে বিক্ষোভ দেখা গেছে, মাঝেমধ্যে তালেবান যোদ্ধাদের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘাতও হয়েছে। তালেবান কয়েকবার কঠোর হাতে বিক্ষোভ দমন করেছে। তবে মঙ্গলবারের বিক্ষোভ নিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে সহিংসতার কোনো খবর পাওয়া যায়নি। শুক্রবার জাতিসংঘ বলেছে, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মোকাবিলায় তালেবান ক্রমেই সহিংস হয়ে উঠছে।

পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক খতিয়ে দেখবে যুক্তরাষ্ট্র :যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনংকেন বলেছেন, আগামী সপ্তাহগুলোতে পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক মূল্যায়ন করবে ওয়াশিংটন। এএফপি জানায়, সোমবার কংগ্রেসের শুনানিতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেওয়ার জন্য ব্লিনংকেনকে চাপ দেওয়া হয়। এদিকে প্রতিনিধি পরিষদের পররাষ্ট্রবিষয়ক কমিটিকে তিনি বলেন, আফগানিস্তানে পাকিস্তানের বহুমুখী স্বার্থ রয়েছে যার কিছু কিছু যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top