হলিউডের সিনেমায় অভিনয় করবেন গায়ক প্রীতম

1631606668_pritom.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : গত বছর থেকে অভিনয়ে নাম লিখিয়েছেন বাংলাদেশি গায়ক-গীতিকার, মিউজিক কম্পোজার প্রীতম আহমেদ। তিনি এখন নেটফ্লিক্স, ওয়ার্নার ব্রাদার্স, অ্যামাজন, সনির মতো আন্তর্জাতিক ওটিটি প্ল্যাটফর্মের সিনেমা ও ওয়েব সিরিজে নিয়মিত অভিনয় করছেন। এরইমধ্যে বিশ্ববরেণ্য অভিনেত্রী ক্লেইরি ফয়, এমা স্টোন, এলিজাবেথ ডেভিকি, জেমস বন্ড বা পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ানের স্যার জোনাথন প্রাইস, হ্যারিপটার-এর ইমেলডা স্টাটান, ডমেনিক ওয়েস্টদের মতো অভিনেতাদের সঙ্গে কাজ করেছেন প্রীতম।

সম্প্রতি তিনি ব্রিটিশ রাজপরিবারের গল্পে যুক্ত হয়েছেন। সনি পিকচার্স প্রযোজিত শিশুদের জন্য নির্মিত এই সিনেমার একটি বিশেষ পর্বে বাংলাদেশ হাইকমিশনারের চরিত্রে অভিনয় করবেন তিনি। সিনেমাটির বাজেট ৩৬ মিলিয়ন ডলার। সিনেমাটিতে তিনি অভিনয় করছেন অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড উইনার এমা স্টোন, এমা থমসনের মতো তারকাদের সঙ্গে।

সিনেমাটি প্রসঙ্গে প্রীতম আহমেদ বলেন, কঠিন বিষয়গুলোর বিনোদনমূলক উপস্থাপনার মাধ্যমে শিশুদের কল্পনা ও স্বপ্নের জগতকে মজবুত করতে হয়। তবেই শিশুটি বড় হয়ে দেশ গড়ায় নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পারবে। আমরা আমাদের শিশুদের শুধু বাঁচার স্বপ্ন দেখাই, কিন্তু কী নিয়ে বাঁচবে, বেঁচে গেলে কি করবে সেসব কিছু বলি না। সিনেমার মূল চরিত্রগুলোতে শিশুরাই, অভিভাবক হিসেবে এখানে আমিসহ অভিনয় করছেন অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড উইনার এমা স্টোন, এমা থমসনসহ অনেকেী। তবে এ ছবির নাম একদমই বলা যাবে না।

আক্ষেপের সুরে তিনি বলেন, ‘আমি জানি না, আমার দেশের শিশুদের জন্য শেষ কবে সিনেমা নির্মিত হয়েছিল! আমরা এসব নিয়ে ভাবলামই না।’

হলিউডের সিনেমায় যুক্ত হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘লন্ডনের মিডলসেক্স ইউনিভার্সিটিতে বিএ অনার্স পড়ছি এখন। আমার ইউনিভার্সিটির ফিল্ম ডিপার্টমেন্টের বন্ধুদের মাধ্যমেই ব্রিটিশ সিনেমার কাস্টিং ডিরেক্টরদের কাছাকাছি পৌঁছাতে পেরেছি। তারা আমার জন্য উপযুক্ত চরিত্রে অভিনয়ের অডিশনে ডাকেন। সেভাবেই নিয়মিত কাজ করছি। যদিও ইংল্যান্ড বা আমেরিকার সমাজের গল্পে আমার গায়ের রং বা চেহারার আকৃতির মানুষের তেমন কোনও ভূমিকা নেই, তাই চট করেই ইংরেজ সমাজের সিনেমায় লিডিং ক্যারেক্টার পাওয়ার আশাও করছি না।’

২০১৬ সাল থেকে যুক্তরাজ্যে বসবাস করছেন এই গায়ক। এ পর্যন্ত প্রীতম পাঁচটি ফিল্ম ও আটটি সিরিজে অভিনয় করেছেন। ২০২২ সালের দিকে সেগুলো মুক্তি পাবে। তবে অভিনয়ে ব্যস্ত সময় পার করলেও সংগীত ছাড়ছেন না তিনি। যুক্তরাজ্যে সংগীতে আন্তর্জাতিক মানের উচ্চশিক্ষা নিচ্ছেন। প্রীতম নিজেকে এতটাই যোগ্য করে তুলতে চান, যাতে সংগীতের আর কোনও ক্ষুদ্র প্রতিযোগীদের সঙ্গে তার লড়াই করতে না হয়।

বাংলাদেশে তিনি কেবল গায়ক, সুরকার এবং গীতিকার হিসেবে পরিচিত। তার ১২টি একক অ্যালবাম রয়েছে। তার জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে হলো বালিকা, লাল রোস, ভালো থেকো, ভাইয়া, চলো পালাই, ভোট ফর থোট, এমন কেনো, সংসার, ঘোর, চলো একশাতে বুড়ো হই, বিচ্ছেদ, পাষানপুরীর গল্প, দুঃখ সারি সারি।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top