মোরেলগঞ্জে ব্যস্ত সড়কটি খানা-খন্দে পূর্ণ, জনদুর্ভোগ চরমে

p-4-1-1.jpg

মোরেলগঞ্জ-ডেউয়াতলা সড়কের ২ কিমি রাস্তা খানা-খন্দে পরিপূর্ণ।

জসিম উদ্দিন, মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধিঃ বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার মোরেলগঞ্জ-তেতুলবাড়িয়া হাট-ডেউয়াতলা-মিঠাখালী জিসি ২০ কিলোমিটার সড়কের ২ কিলোমিটার বেহাল দশায় পতিত হয়েছে। ফলে সড়কটিতে শুধু যানবাহনই নয় সাধারণ মানুষের পায়ে হেঁটে চলাচল করাই দুষ্কর হয়ে পড়েছে। প্রতিনিয়ত ঘটে চলেছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা।

মোরেলগঞ্জ পৌর সদরের স্টিল ব্রিজ থেকে শুরু হওয়া ১২ নং জিউধরা ইউনিয়নের ঢেউয়াতলা ও মিঠাখালী পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার জিসি (গ্রোস সেন্টার) পিচঢালা সড়কটি অত্যন্ত জনগুরুত্বপূর্ণ অন্যতম ব্যস্ত সড়ক। ২০১২-১৩ অর্থ বছরে জাইকার অর্থায়নে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্বাবধানে এটি নির্মিত হয়। এর প্রথম ৩ কিলোমিটার সাড়ে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়েছিল। পাশ্ববর্তী বারইখালী খালের পাড়ে পাইলিংয়ের ব্যবস্থা না করে এবং রাস্তায় পর্যাপ্ত ঢাল না থাকার কারণে রাস্তাটি অল্পদিনেই জায়গায় জায়গায় ভেঙ্গে সরু হয়ে গেছে বলে স্থানীয়দের ধারণা।

এ সড়ক দিয়ে মোটর সাইকেল, অটোরিক্সা, বেবিটেক্সি, সিএনজি, নছিমন, করিমন, মাহেন্দ্র ও ইঞ্জিনচালিত ভ্যান, ব্যাটারিচালিত গাড়ি সহ মালামাল বহনকারী বহু যানবাহন সহজ পথে কম সময়ে পার্শ্ববর্তী মোংলা-রামপাল সহ বিভিন্ন এলাকায় যাতায়াত করে। উপজেলার বারইখালী ইউনিয়ন পরিষদ, চৌধুরি কাছাড়ি, তেুলবাড়িয়া বাজার সহ বিভিন্ন স্কুল, মাদ্রাসা, এতিমখানা সহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান এ সড়কে অবস্থিত। প্রতিদিন হাজার হাজার কর্মমুখী মানুষ, শত শত শিক্ষার্থী ও যানবাহন এ সড়ক দিয়ে চলাচল করে।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার ফকিরবাড়ি, ভরাঘাটা, চৌধুরি কাছাড়ি এবং বারইখালি ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত বারইখালী খালের তীর ঘেঁষে ২ কিলোমিটার রাস্তার অবস্থা খুবই খারাপ। দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় এ ২ কিলোমিটার রাস্তার অবস্থা বেহাল। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়ে আছেন এলাকার সাধারণ মানুষ। রাস্তার বেহাল দশায় উপজেলা শহরের সঙ্গে যোগাযোগ কষ্টের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে এসব এলাকার হাজার হাজার নিত্য যাতায়াতকারী মানুষের। বারইখালী ইউনিয় পরিষদের উদ্যোগে কিছু কিছু জায়গায় আস্ত ইট বা ইটের খোয়া দিয়ে দুর্ভোগ লাঘব করার চেষ্টা করা হয়েছিল বটে। তবে তা এখন ভেঙ্গে গিয়ে বেহাল অবস্থায় পরিণত হয়েছে।

দেখা যায়, রাস্তার দক্ষিণে বারইখালী খালের পাড়ের দিকের মাটি সরে রাস্তাটি ভেেেঙ্গ পড়েছে। ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা, ভ্যানগাড়ি ও মোটরসাইকেল আরোহীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। প্রায়ই গাড়ি উল্টে পড়ে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন গাড়ি চালকেরা ও এসব যানবাহনের যাত্রীরা। শুধু গাড়ি চালক নয়, পথচারীদের জন্যও দুর্বোধ্য হয়ে উঠেছে এ রাস্তাটি।

মাহিন্দ্র চালক মিঠু জানান, রাস্তাটির পিচ উঠে বড় বড় খানা-খন্দে রূপ নিয়েছে। বহু জায়গায় রাস্তাটি পার্শ্ববর্তী বারইখালী খালের প্রবল স্রোতের তোড়ে ভেঙ্গে সরু হয়ে গেছে। ইঞ্জিনচালিত বাহনগুলি প্রায় দুর্ঘটনায় পতিত হয়। রাস্তাটি সংস্কার করা না হলে গাড়ি চালানো বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। সে ক্ষেত্রে শত শত থ্রি-হুইলার চালক বেকার হয়ে পড়বে।

এ ব্যাপারে মোরেলগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল মতিন জানান, খালের পাড়ে টেকসই সড়কের জন্য এলজিইডি’র সদর দপ্তরের ডিজাইন ইউনিট কর্তৃপক্ষের কাছে পরামর্শ ও কারিগরি সহায়তার চেয়ে পাঠানো হয়েছে। দ্রুত প্রক্রিয়া শেষ এবং কাজ শুরু হবে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top