আইপিএল: কেকেআর শিবিরে অশান্তি

134709_bangladesh_pratidin_zzzzzzzzzzasasasasasas.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : দ্বিতীয় পর্বের আইপিএল শুরু হতে আর কয়েকদিন বাকি। তার আগেই কলকাতা নাইট রাইডার্স শিবিরে শুরু হলো দ্বন্দ্ব। অশান্তির কারণ কুলদীপ যাদব। হঠাৎই বিস্ফোরক দলের এই স্পিনার। অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যানকে নিয়ে প্রশ্ন তুললেন তিনি।

কুলদীপের বক্তব্য, দলে অধিনায়কের দিক থেকে ক্রিকেটারদের সঙ্গে যোগাযোগের কোনও ব্যাপার নেই। এবারের আইপিএল-এ একটি ম্যাচেও খেলার সুযোগ পাননি কুলদীপ। জানেনও না, আদৌ দ্বিতীয় পর্বে সুযোগ পাবেন কিনা।

আকাশ চোপড়ার ইউটিউব চ্যানেলে এই চায়নাম্যান স্পিনার বলেন, ‘‘যদি কোচ বা অধিনায়কের সঙ্গে অনেক দিন ধরে কাজ করার সুযোগ পাওয়া যায়, তাহলে সুবিধা হয়। তারাও আমাদের বুঝতে পারে। কিন্তু যদি কোনও যোগাযোগ না থাকে, তাহলে ব্যাপারটা খুব কঠিন হয়ে যায়। মাঝে মাঝে তো বোঝাই যায় না, দল আমার থেকে কী চাইছে, আমি আদৌ খেলার সুযোগ পাব কিনা। কখনও কখনও মনে হয়, আমার দলে থাকা উচিত, ম্যাচ জেতানোর ক্ষমতা আমার আছে। কিন্তু বুঝতেই পারি না, কী কারণে দল থেকে বাদ পড়লাম।’’

নাইট রাইডার্সে বিদেশি অধিনায়ক থাকায় কাজটা বেশি কঠিন হয়েছে বলে মনে করছেন কুলদীপ। বলেন, ‘‘আইপিএল মানে টিম ম্যানেজমেন্ট মাত্র দু’ মাসের জন্য একটা পরিকল্পনা নিয়ে আসে। এতে কাজটা আরও কঠিন হয়ে যায়। ভারতীয় দলে বাদ পড়লে সেটা জানানো হয়, সেটা নিয়ে সংশ্লিষ্ট প্লেয়ারের সঙ্গে কথা বলা হয়। কিন্তু আইপিএল-এ সে সব হয় না। এখানে আমাকে বাদ দেওয়া নিয়ে কেউ কোনও ব্যাখ্যা দেয়নি। আমার খুব খারাপ লেগেছে। মনে হয়েছে, আমার উপর এদের কোনও বিশ্বাস, আস্থা নেই। হাতে অনেক প্লেয়ার থাকলে এরকম হয়। কেকেআর দলে এখন অনেক স্পিনার।’’

কুলদীপের সন্দেহ, ক্রিকেটার হিসেবে তিনি কেমন, সে সম্পর্কে মর্গ্যানের আদৌ কোনও ধারণা আছে কিনা। তিনি বলেন, ‘‘জানি না মর্গ্যান আমাকে কী চোখে দেখে। বিদেশি কেউ অধিনায়ক হলে যোগাযোগের অভাবটা আরও বাড়ে। ভারতীয় কেউ অধিনায়ক হলে সরাসরি তাকে গিয়ে জিজ্ঞেস করা যায়, কেন বাদ দেওয়া হয়েছে। যেমন রোহিত শর্মা যদি অধিনায়ক হয়, ওকে অনায়াসে প্রশ্ন করা যায়। কিন্তু এখানে এটা হয় না।’’

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top