গৃহবধূ নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল, আটক দু’জনকে আদালতে পাঠানো হচ্ছে

noa-2109130349.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় এক গৃহবধূকে স্বামী-দেবরের নির্যাতনের ভিডিও চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ দু’জনকে আটক করে।

এরা হলেন গৃৃৃহবধূর স্বামী আমির হোসেন (৪০) ও তার বোন হাসিনা বেগম। তারা উপজেলার ৭ নং মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ রাজারামপুর মোহাম্মদীয়া মিয়া বাড়ির মৃত মফিজ উদ্দিনের সন্তান।

সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকালে আটক দু’জনকে নোয়াখালী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হবে বলে জানিয়েছেন সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল বাতেন।

শনিবার বিকেল ৪ টার দিকে উপজেলার ৭ নং মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ রাজারামপুর মোহাম্মদীয়া মিয়া বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। পরদিন নির্যাতনের ভিডিও চিত্রটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

থানা সূত্রে জানা যায়, পারিবারিক কলহের জের ধরে গৃহবধূকে (৩০) শনিবার বিকেল ৪টার দিকে তার স্বামী আমির হোসেন ও দেবর এরশাদ নির্দয় ভাবে চুলের মুঠি ধরে লাঠি পেটা করে এবং বেধড়ক চড় থাপ্পড়,লাথি, কিলঘুষি দিয়ে গুরুতর আহত করে। গৃহবধূকে নির্যযাতনের সময় এক প্রতিবেশী নির্যাতনের ১মিনিট ১৭ সেকেন্ড একটি ভিডিও ধারণ করে।

জানা যায়, ঘটনার পর নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূ তার বাবার বাড়ি পার্শ্ববর্তী কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাটে গিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ওসি আব্দুল বাতেন মৃধা জানান, ঘটনায় আরেক অভিযুক্ত গহবধূর দেবর এরশাদ পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের বিষয়টিও প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ওই মামলায়ই আজ (সোমবার) সকালে আসামিদের নোয়াখালী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হবে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top