মানবদেহ নিয়ে প্রাচীণ পাণ্ডুলিপি পাওয়া গেলে যেখানে

150146manuscripts_sau.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট  : রিয়াদের কিং আব্দুল আজিজ পাবলিক লাইব্রেরিতে মানবদেহ নিয়ে রচিত প্রাচীন পাণ্ডুলিপি রয়েছে। বিশ্বের প্রথম পাণ্ডুলিপি হিসেবে ধারণা করা এ পাণ্ডুলিপিতে মানব দেহের গঠন-আকৃতি ও টিকা দেওয়া হয়েছে। মনসুর বিন মুহাম্মদ বিন আহমদ বিন ইউসুফ বিন ইলিয়াস আল-কাশ্মীরির লেখা ‘মানব দেহের শারীরবৃত্ত’ নামের বইটি ৭৮২-৭৯৩ হিজরি সময়ের মধ্যে লেখা হয়।

ইসলামী চিকিৎসা বিষয়ক পাণ্ডুলিপি হিসেবে বইটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আধুনিক শরীরবৃত্তির লেখক ছিলেন বেলজিয়ান চিকিৎসক আন্দ্রেয়াস ভেসালিয়াস। একই সময় ইতালীয় চিত্রশিল্পী লিওনার্দো দা ভিঞ্চি যেমন সুপরিচিত। সংরক্ষিত বইটিতে পেশী, হাড় ও রক্তনালীর অঙ্কন রয়েছে, যা ওই সময়ে চিকিৎসকরা কল্পনা করেছিলেন।

বইয়ের কিছু লেখা কালো কালিতে লেখা। আর কিছু অংশ লাল কালিতে লেখা। তা কার্ডবোর্ডের চামড়ায় আবদ্ধ। চিত্রাঙ্কনের পাশে আরবি ভাষায় বিববরণ এর লেখা হয়। বইয়ের মধ্যে পাঁচটি প্রবন্ধ ও উপসংহার রয়েছে। একাধিকবার এ পাণ্ডুলিপি মুদ্রিত হয়। ১২৬৪ হিজরি সালে তা প্রথম মুদ্রিত হয়।

মুসলিম চিকিৎসক মনসুর বিন মুহাম্মদ বিন ইলিয়াস ইরানের সিরাজ নগরীর বাসিন্দা ছিলেন। সেখানে বিজ্ঞান বিষয়ে খ্যাত পরিবারের তিনি বেড়ে ওঠেন। তিনি তাঁর অনেক লেখা ইরানের রাজকুমারদের উৎসর্গ করেন।

‘অ্যানাটমি অব এ হিউম্যান বডি’ নামক বইটি ‘মানসুরিস অ্যানাটম’ নামে বেশ পরিচিত। তাঁর আরেকটি বিখ্যাত গ্রন্থ হলো, ‘আল কিফায়াহ আল মুজাহিদিয়্যাহ’। ইউরোপীয় চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা তাঁর বইয়ে আঁকা মানবদেহের চিত্র থেকে উপকৃত হন। অ্যানাটমি বিদ্যার ফলে চিকিৎসাবিজ্ঞানে নতুন অনেক বিষয় আবিষ্কৃত হয়।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top