সিনেমায় শুটিংয়ের জন্য চীন ও জার্মানি থেকে অস্ত্র এনেছেন নির্মাতা

image-464298-1631439150.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : সাত বীর মুক্তিযোদ্ধার সংগ্রাম ও আত্মত্যাগ নিয়ে ছবি নির্মাণ করছেন খিজির হায়াত খান। সিনেমার নাম ‘ওরা ৭ জন’।

সিনেমাটির জন্য ছয় মাস ধরে প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। পাকিস্তানি হানাদারদের বিরুদ্ধে অকুতোভয় মুক্তিযোদ্ধাদের সরাসরি যুদ্ধের ঘটনা ফুটে উঠবে সিনেমার গল্পে।

তাই ছবিকে জীবন্ত করে তুলতে শুটিংয়ের জন্য চীন ও জার্মানি থেকে অস্ত্র নিয়ে এনেছেন খিজির হায়াত। অনুমতি নিয়ে বানিয়ে আনা হয়েছে ডামি রাইফেল। চলছে অন্যান্য প্রস্তুতিও।

অস্ত্র আনার বিষয়ে নির্মাতা খিজির হায়াত রোববার  বলেন, দেশের প্রচলিত আইন অনুসরণ করেই চীন ও জার্মানি থেকে একে-৪৭, এসএমজি, লংরেঞ্জ রাইফেল আগ্নেয়াস্ত্র এনেছি। সিনেমাকে যতটা প্রাণবন্ত ও বাস্তবসম্মত করা যায় সেই লক্ষ্যেই এটা করা হয়েছে। যথাযথ নিয়ম মেনেই শুটিং শেষ করে অস্ত্রগুলো সঠিক স্থানে জমা দেওয়া হবে। এ বিষয়ে আমরা যথেষ্ট সতর্ক।

‘ওরা ৭ জন’ চরিত্রে কে কে অভিনয় করছেন সেটি এখনও বড় রহস্য। তবে সাতজনের মধ্যে দুজন ব্যতীত সব চরিত্রই মৌখিকভাবে চূড়ান্ত করেছেন বলে জানিয়েছেন খিজির হায়াত।

কেবল একজনের নাম প্রকাশ করেছেন এ নির্মাতা। গণমাধ্যমকে বলেন, ওই সাতজনের একজনের চরিত্র আমি নিজেই করছি। বাকি ৬ জনের সঙ্গে চুক্তি হওয়ার পর খুব শিগগিরই অভিনেতাদের নাম প্রকাশ করব।

তবে সিনেমার প্রস্তুতি ও গল্পের বিষয়ে তথ্য দিয়েছেন নির্মাতা খিজির হায়াত।  বলেন, এর আগে ‘ওরা ১১ জন’ সিনেমায় মুক্তিযুদ্ধের গল্প উঠে এসেছিল। আমাদের গল্পে পুরো যুদ্ধ দেখানো হবে। যুদ্ধের ময়দানেই সিনেমার শুরু ও শেষ।’

গল্পে দেখানো হবে দুদিনের জন্য একদল বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রতিরোধযুদ্ধে যান। সাতজনের সেই দল দুদিনের জন্য গেলেও তাদের সাত দিন যুদ্ধের ময়দানে কেটে যায়। সিনেমার শুটিং লোকেশন সিলেট। মুক্তিযুদ্ধের ৫ নম্বর সেক্টর ঘেঁষে বর্ডার এলাকায় শুটিং হবে। আগামী ২৭ তারিখ থেকে টানা ৪০ দিন শুটিং হওয়ার কথা রয়েছে।

প্রসঙ্গত র আগে ২০১৮ সালে  ‘মি. বাংলাদেশ’ সিনেমাটি লেখার পাশাপাশি মূল চরিত্রে অভিনয় করেন খিজির হায়াত। ২০১০ সালে নির্মাণ করেন ‘জাগো’। তার প্রথম ছবি ‘অস্তিত্বে আমার দেশ’।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top