গ্রাহকদের বিলের অর্থ আত্মসাৎ

প্রতারক চক্রের আরো ২ সদস্য গ্রেপ্তার

image-146737-1610976314bdjournal.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি ও টেলিফোন বিল বাবদ পাঁচ-ছয় শ গ্রাহকের কাছ থেকে দুই কোটি ৩০ লক্ষ নিয়ে তা সংশ্লিষ্ট ইউনিটে জমা না দিয়ে আত্মসাৎ করার ঘটনায় প্রতারক চক্রটির আরো দুই সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) রাতে রাজধানীর মিরপুর থানা এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন রাজধানীর মনিপুরে অবস্থিত ডেসকোর আউট সোর্সিং সুপারভাইজার মো. মামুন (৩২) ও তিতাস গ্যাস মিরপুরের আউট সোর্সিং কর্মচারী মো. রকিবুল ইসলাম রাকিব (৩২)।

আজ মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) পুলিশ সদর দপ্তর থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, প্রতারণার অভিযোগে ২০১৯ সালের ২০ মে থেকে ২০২০ সালের ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়ের মধ্যে ওমর ফারুকসহ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। আসামিরা রাজধানীর মনিপুর এলাকায় ইন্টার্ন ব্যাংকিং অ্যান্ড কমার্স নামের একটি প্রতিষ্ঠান খোলেন। গতরাতে গ্রেপ্তার দুই আসামি মামুন ও রাকিব ওই প্রতিষ্ঠানটির মাধ্যমে ইতোপূর্বে গ্রেপ্তার অন্য আসামিদের সহায়তায় পাঁচ-ছয় শ গ্রাহকের টাকা আত্মসাৎ করেন। ওই ঘটনায় গত ২ ফেব্রুয়ারি মো. নাছির উদ্দিন (৫৭) নামের এক গ্রাহক বাদী হয়ে মিরপুর মডেল থানায় পেনাল কোড দায়ের করেন।

মামলাটি মিরপুর মডেল থানা পুলিশ কর্তৃক তদন্তাধীন অবস্থায় পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের আদেশে পিবিআই ঢাকা মেট্রো (উত্তর)-এ পরবর্তী তদন্তের জন্য পাঠানো হয়। পিবিআই গত ১৫ এপ্রিল মামলার তদন্তভার গ্রহণ করে। ইতোমধ্যে মূল আসামিসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মামলায় ইতোপূর্বে গ্রেপ্তার এজাহারনামীয় আসামি ওমর ফারুক ফৌজদারি কার্যবিধি ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। তার জবানবন্দিতে ঘটনায় প্রত্যক্ষভাবে জড়িত থাকার অভিযোগে মামুন ও রাকিবকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

পিবিআই-এর ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার, বিপিএম (বার), পিপিএম-এর তত্ত্বাবধানে পিবিআই ঢাকা মেট্রো (উত্তর)-এর বিশেষ পুলিশ সুপার মো. জাহাঙ্গীর আলমের সহযোগিতায় মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক মো. আশরাফুজ্জামান সঙ্গীয় কর্মকর্তা ও ফোর্সের সহায়তায় দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হন বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গ্রেপ্তার দুই আসামি ইতোপূর্বে এজাহারনামীয় আসামি ওমর ফারুকের ইন্টার্ন ব্যাংকিং অ্যান্ড কমার্স অফিসে যোগাযোগের মাধ্যমে টাকা নিয়ে যেতেন এবং তাকে প্রতারণামূলক কাজে সহায়তা করতেন। আসামি মামুন ডেসকো মনিপুর-এর আউট সোর্সিংয়ের সুপারভাইজার এবং আসামি রাকিবুল ইসলাম রাকিব তিতাস গ্যাস মনিপুর-এর আউট সোর্সিং-এর কর্মচারী। তাঁরা মনিপুর, আহম্মদনগর এলাকায় বিদ্যুৎ এবং গ্যাস লাইন বিচ্ছিন্ন ও সংযোজনের কাজে নিয়োজিত ছিলেন।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top