সাংবাদিকতার কার্ড দেয়ার কথা বলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

212666_image_url_Abhay-Rape-Pic-2-2-1.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরের অভয়নগর উপজেলার এক স্কুলছাত্রীকে সাংবাদিকতার কার্ড করে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এমনি ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবীর অভিযোগও তাদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর মা বাদি হয়ে দুই যুবকের বিরুদ্ধে অভয়নগর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় আজ মঙ্গলবার দুই যুবককে আটক করে যশোর আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আটককৃতরা হলেন, উপজেলার চলিশিয়া ইউনিয়নের বাশার মোড়লের ছেলে মাহাবুবুর রহমান ওরফে মাহাবুব (৪০) ও নওয়াপাড়া পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের গুয়াখোলা গ্রামের নাসির বাঘার ছেলে অনিক বাঘা (২৬)।

মামলা সূত্র ও মামলার বাদী স্কুলছাত্রীর মা জানান, তার মেয়ে উপজেলার নওয়াপাড়া পাইলট বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী ও বাংলাদেশ বেতারের একজন সংগীত শিল্পী। ৩/৪ মাস পূর্বে সাংবাদিকতার কার্ড করার জন্য মাহাবুবের সঙ্গে তার মেয়ের যোগাযোগ হয়। পরবর্তীতে তার মেয়ের নিকট হতে মাহাবুব দুই কপি ছবি ও জন্মনিবন্ধনের ফটোকপি সংগ্রহ করে। গত ২১ আগস্ট সকাল আনুমানিক সাড়ে ১১ টার সময় সাংবাদিকতার ফরম পুরণের জন্য মাহাবুব তার মেয়েকে চলিশিয়া গ্রামের একটি মৎস্য ঘেরের অফিসে আসতে বলে। অফিসে পৌঁছানোর পর তার মেয়েকে ধর্ষণ করে এবং মোবাইল ফোনে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে মাহাবুব।

তিনি আরো জানান, ঘটনাটি কাউকে জানালে ধারণ করা ধর্ষণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে তার মেয়েকে হুমকি দেয় মাহাবুব। কয়েকদিন পর মাহাবুব ও অনিক বাঘা তার মেয়েকে স্থানীয় কাঁচা বাজারের পেছনে একটি স’মিলে দেখা করতে বলে। তার মেয়ে সেখানে পৌঁছালে মাহাবুব ও অনিক বাঘা মোবাইল ফোনে ধারণ করা ধর্ষণের ভিডিও ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে ডিলিট করার প্রস্তাব দেয়। প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় মাহাবুব জনৈক এমডি নাসির হোসেন নামের একটি ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে তার মেয়ের অশ্লীল ছবি ও ধর্ষণের ভিডিও ছেড়ে দেয়।

স্কুলছাত্রীর মা আরো বলেন, সম্মানহানীর ভয়ে আমার মেয়ে প্রথমে মুখ খোলেনি। পরবর্তীতে মেয়ের কাছ থেকে ঘটনা জানতে পেরে অভয়নগর থানায় মামলা দায়ের করেছি। মাহাবুব ও তার সঙ্গী অনিক বাঘাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এ ব্যাপারে অভয়নগর থানার অফিসার্স ইনচার্জ এ কে এম শামীম হাসান জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করা হয়েছে। ঘটনার সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত দুই আসামীকে গ্রেপ্তার পূর্বক আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top