পরিচালনার কোনো ইচ্ছা নেই

image-462299-1630995678.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : সময়ের জনপ্রিয় ও ব্যস্ত অভিনেতা শতাব্দী ওয়াদুদ। মঞ্চ থেকে টিভি নাটক, অতপর সিনেমা-সমানতালে সামলাচ্ছেন সবকিছু। বর্তমান ব্যস্ততা, কাজের অভিজ্ঞতা ও সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো…’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি

* বর্তমান ব্যস্ততা কী নিয়ে?

** বিটিভির একটি ধারাবাহিকে কাজ করছি। সেই সঙ্গে দীপ্ত টিভির ‘মাশরাফি জুনিয়ার’সহ তিনটি ধারাবাহিকের জন্য মাসে ১২/১৫ দিন ব্যস্ত থাকতে হয়। এ ছাড়া একক নাটক ও ওটিটি প্ল্যাটফরমেও কাজ করছি।

* নাটকের পাশাপাশি সিনেমায়ও আপনি সরব। দুটি কাজ সমন্বয় করেন কীভাবে?

** এ দুটি কাজ আলাদা হলেও আমার সমন্বয় করতে এখনো পর্যন্ত কোনো সমস্যা হয়নি। নাটকের জন্য হয়তো প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেওয়া হয় না। কিন্তু সিনেমায় কাজের ক্ষেত্রে চেষ্টা করি কিছু প্রস্তুতি আগাম নেওয়ার। এ ক্ষেত্রে দেখা যায়, শুটিং শুরু হওয়ার পাঁচ-ছয়দিন আগে সব রকম কাজ বাদ দিয়ে ওই চরিত্রে মনোনিবেশ করি। এতে করে চরিত্রটিকে দারুণভাবে ফুটিয়ে তোলা যায়।

* পরিচালনা বা প্রযোজনার কোনো ইচ্ছা আছে কি?

** প্রযোজনার বিষয়টি জানি না। কিন্তু পরিচালনার কোনো ইচ্ছা আমার নেই। কারণ বাংলাদেশে পরিচালকের কাজটা একদম ‘থ্যাংকলেস জব’। দুঃখজনক হলেও এটাই সত্যি, একটা ভালো কাজের মাধ্যমে আমরা অভিনেতারা যতটা আলোচনায় আসি, একজন পরিচালক কিন্তু সেভাবে আলোচনায় আসেন না। যদিও আমাদের পরিচালনা করেন তারাই। আবার অর্থনৈতিকভাবেও একজন পরিচালক কিন্তু সেভাবে লাভবান হন না। আমি নিজেও খুব অস্থির প্রকৃতির। শুধু নিজের চরিত্রের ওপর ফোকাস করতে পারি। আর পরিচালকের কাজ হচ্ছে সবার চরিত্রগুলো দেখা। আমি এতটা ঠান্ডা মাথায় এ কাজটা সামলাতে পারব না। আমার দৃষ্টিতে পরিচালকের কাজ কিছুটা আলাদা, আর অনেক কঠিন একটি ব্যাপার।

* ভিউকেন্দ্রিক কাজের এ সময়ে আপনার কাছে গুরুত্বপূর্ণ দিক কোনটি?

** গুরুত্বসহকারে নির্মিত একটি ভালো কাজ আমার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। ভিউয়ের ট্রেন্ডটা খুব বেশি দিনের নয়। এ বিষয়টি সামনের দিনগুলোতে খুব দীর্ঘায়িত হবে না বলে মনে করি। দিন শেষে একজন ভালো অভিনেতার ভালো কাজটা থেকে যাবে। এখন দেশে ও দেশের বাইরে ওটিটি প্ল্যাটফরমগুলোতে অনেক ভালো ভালো কাজ হচ্ছে। ওই কাজগুলো কিন্তু খুব গুরুত্বসহকারে দেখছি আমরা। ভালো-মন্দ নিয়ে বিশদ আলোচনা-সমালোচনাও হচ্ছে। এখন ভিউ, ভাইরালের ট্রেন্ড শুরু হয়েছে, এটিকে নেগেটিভলি নেওয়ার কিছু নেই। এখান থেকে দু-চারজন ভালো আর্টিস্ট যদি বেরিয়ে আসে, তবে তো সেটাই ভালো।

* ২৫ বছরেরও বেশি অভিনয় ক্যারিয়ারে প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তি কী?

** অনেক চরিত্র আছে, যা করা হয়নি। আবার সম্ভবও নয়। একজন অভিনেতার সব ইচ্ছা তো পূরণ হয় না। আবার সব কাজ ভালোও হয় না। মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক অনেক কাজ করেছি, যা জীবনের মূল্যবান প্রাপ্তিগুলোর মধ্যে অন্যতম।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top