‘পাঞ্জশিরে তালেবানের বিরুদ্ধে লড়াই চলবে’

image-462115-1630911351-1.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : পাঞ্জশির প্রদেশের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার দাবি করেছে তালেবান। এরই মধ্যে ন্যাশনাল রেসিসটেন্স ফ্রন্ট (এনআরএফ) জানিয়েছে, তারা পাঞ্জশিরে তালেবানের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাবে।

সোমবার এনআরএফ লড়াই চালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে নিজেদের অনড় অবস্থানের কথা জানায়। খবর এনডিটিভির।

একই সঙ্গে পাঞ্জশিরের দখল নিয়ে তালেবানের দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে এনআরএফ।

প্রতিরোধ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে এ বাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়, লড়াই চালিয়ে যাওয়ার জন্য উপত্যকার প্রতিটি কৌশলগত অবস্থানে উপস্থিত রয়েছেন প্রতিরোধ যোদ্ধারা।  ন্যায়বিচার এবং স্বাধীনতা অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত তালেবান ও তাদের মিত্রদের বিরুদ্ধে লড়াই চলবে।

বেশ কয়েক দিন ধরে চলে আসা তীব্র লড়াই শেষে তালেবান পাঞ্জশির ‘সম্পূর্ণভাবে নিয়ন্ত্রণে’ নেওয়ার দাবি করেছে।

তালেবানের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ এক বিবৃতিতে বলেন, এই বিজয়ের মাধ্যমে আমাদের দেশকে পুরোপুরি যুদ্ধের জলাভূমি থেকে বের করে আনা হয়েছে।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ছবিতে দেখা যায়, তালেবানের সদস্যরা পাঞ্জশির প্রদেশের গভর্নরের বাসভবনের গেটের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন।

এর আগে আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় পাঞ্জশির প্রদেশের নিয়ন্ত্রণকারী জাতীয় প্রতিরোধ ফ্রন্টের কমান্ডার আহমেদ মাসুদ যুদ্ধবিরতির ব্যাপারে আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। কিন্তু তালেবান তা নাকচ করে দেয়।

১৫ আগস্ট তালেবান কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয়। এর পর পাঞ্জশির ছাড়া ৩৩ প্রদেশের নিয়ন্ত্রণ ছিল গোষ্ঠীটির হাতে। এবার পুরো দেশ নিয়ন্ত্রণে নিতে সক্ষম হলো তালেবান।
আফগানিস্তানের সাম্প্রতিক উত্তাল ইতিহাসে নাটকীয় ও চাপিয়ে দেওয়া পাঞ্জশির উপত্যকাটি প্রথমবারের মতো তালেবান মোকাবিলা করেনি। ১৯৮০-এর দশকে সোভিয়েত বাহিনীর বিরুদ্ধে এবং ’৯০-এর দশকে তালেবানদের বিরুদ্ধে এটি একটি শক্ত ঘাঁটি ছিল।

ন্যাশনাল রেসিসটেন্স ফ্রন্ট অব আফগানিস্তান (এনআরএফ) সম্প্রতি বিশ্বকে জানিয়ে দিয়েছে, তারা এ উপত্যকাটিতে শক্তিশালী।

এনআরএফের পররাষ্ট্র শাখার প্রধান আলি নাজারি বিবিসিকে বলেছিলেন, রেড আর্মি (সোভিয়েত) আমাদের পরাজিত করতে পারেনি এবং ২৫ বছর আগে তালেবান এ উপত্যকাটি দখল করার চেষ্টা করেছিল এবং তারা ব্যর্থ হয়েছে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top