বিশালাকৃতির এক গর্ত ঘিরে রহস্য চিলিতে

chile-sinkhole-20220805094043.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : চিলির একটি খনি অঞ্চলে বিশালাকৃতির রহস্যময় গর্তের খোঁজ পাওয়া গেছে। চলতি সপ্তাহেই লাতিন আমেরিকার এই দেশটির উত্তরাঞ্চলের গর্তটির খোঁজ পাওয়া যায়। এটির ব্যাসার্ধ প্রায় ২৫ মিটার বা ৮২ ফুট। ইতোমধ্যেই গর্তটির বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে চিলির সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

এদিকে ওপর থেকে তোলা গর্তটির কিছু ছবি প্রকাশিত হয়েছে চিলির সংবাদমাধ্যমে। ছবিতে দেখা গেছে, কানাডার লুনডিন মাইনিং নামের একটি তামার খনির জমিতে বিশালাকৃতির একটি গর্ত। রাজধানী সান্তিয়াগো থেকে উত্তর দিকে প্রায় ৬৬৫ কিলোমিটার দূরের গর্তটির অবস্থান।

কয়দিন আগেই চিলির ‘ন্যাশনাল সার্ভিস অব জিওলজি অ্যান্ড মাইনিং’ প্রথম গর্তটি দেখতে পায়। গর্তটি দেখার জন্য রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার পক্ষ থেকে ওই এলাকায় একাধিক বিশেষজ্ঞ পাঠানো হয়। সংস্থাটির পরিচালক ডেভিড মন্টেনেগ্রো এক বিবৃতিতে বলেছেন, গর্তটির গভীরতা ও আকার যথেষ্ট বড়। গভীরতা প্রায় ২০০ মিটার বা ৬৫৬ ফুট। গর্তের ভেতরে কোনো বস্তুর সন্ধান পাওয়া যায়নি। তবে সেখানে অনেক পানি রয়েছে।

আরও পড়ুন : মেসি-নেইমারদের ওপর আরও এক কঠিন নিয়ম চাপিয়ে দিলো পিএসজি

সংস্থাটি জানিয়েছে, গর্তটির কাছেই অবস্থিত আলকাপারোসা খনির প্রবেশদ্বার। ইতোমধ্যে খনির ভেতরে যাওয়ার পথগুলি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।এদিকে লুনডিন মাইনিং একটি বিবৃতিতে বলেছে, তাদের খনির জমিতে একটি গর্ত তৈরি হয়েছে। তবে এতে শ্রমিক ও কর্মীদের তেমন কোনো সমস্যা হচ্ছে না।

এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গর্তটির সবচেয়ে কাছে থাকা বাড়ির দূরত্ব ৬০০ মিটারের বেশি। এর আশপাশে এক কিলোমিটারের মধ্যে জনবহুল এলাকা বা কোনো সরকারি অফিস নেই। যেখানে গর্তটি তৈরি হয়েছে, তার ৮০ শতাংশের মালিকানা কানাডিয়ান কোম্পানি লুনডিন মাইনিংয়ের। বাকিটার মালিকানা জাপানের একটি কোম্পানির।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top