তাইওয়ানের চারদিকে সামরিক মহড়া শুরু করল চীন

china-54-20220804110538.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির সফরের একদিন পরই তাইওয়ানের চারদিকে সামরিক মহড়া শুরু করেছে চীন। বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) চীনা সামরিক বাহিনী লাইভ-ফায়ার (তাজা গোলাবর্ষণ)-সহ এই মহড়া শুরু করে।

বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপি। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীনা সামরিক বাহিনী স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার দুপুরে (বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টায়) তাইওয়ানের আশেপাশের সাগরে লাইভ-ফায়ারসহ সামরিক মহড়া শুরু করেছে বলে জানিয়েছে চীনের রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধম সিসিটিভি।

বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া এই মহড়া চলবে আগামী রোববার পর্যন্ত। নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে তাইওয়ানের একটি মানচিত্র অন্তর্ভুক্ত করে সিসিটিভি বলেছে, ‘আজ দুপুর ১২ টা থেকে আগামী ৭ আগস্ট পর্যন্ত পিপলস লিবারেশন আর্মির একটি গুরুত্বপূর্ণ সামরিক মহড়া হচ্ছে।’

এদিকে তাইওয়ানের সামরিক বাহিনী বৃহস্পতিবার বলেছে, তাদের বাহিনী দ্বীপের আশপাশের জলসীমায় অভূতপূর্ব চীনা এই সামরিক মহড়া ঘনিষ্ঠভাবে পর্যবেক্ষণ করছে এবং সংঘাতের জন্য প্রস্তুত রয়েছে। যদিও সংঘাত হোক তারা তা চাইবে না।

তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘জাতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় যুদ্ধ না করে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি নেওয়ার নীতি বজায় রাখবে এবং (চীনের সঙ্গে) বিরোধ না বাড়াতে ও বিরোধ সৃষ্টি না করার মনোভাব নিয়ে এগিয়ে যাবে।’

আরও পড়ুন : ইউক্রেন যুদ্ধ অবসানে এবার শি জিনপিংয়ের দ্বারস্থ জেলেনস্কি

মার্কিন হাউসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির স্ব-শাসিত ওই দ্বীপে যাওয়ার পর গুরুত্বপূর্ণ এই আন্তর্জাতিক জাহাজ চলাচলের রুটটিতে চীন শক্তি প্রদর্শন করার সুযোগ পেয়েছে। মূলত ন্যান্সি পেলোসির সফরের প্রধান প্রতিক্রিয়া হিসেবে তাইওয়ানের চারপাশের অবস্থানগুলোতে সামরিক মহড়া চালানোর পরিকল্পনা নেয় বেইজিং। বড় মাপের এই মহড়ায় সরাসরি গোলাবর্ষণের ঘটনাও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

বুধবার চীনের এই পরিকল্পনার তীব্র নিন্দা করে ভূখণ্ডটির সরকার। তাইওয়ানের সামরিক বাহিনী বলছে, এই ধরনের মহড়া ‘তাইওয়ানের আঞ্চলিক স্থান আক্রমণ’ এবং ‘তাইওয়ানের আকাশ ও সমুদ্র অবরোধের সমান।’

পেলোসির সফরের শাস্তি হিসেবে তাইওয়ানকে পুরোপুরি ঘিরে ধরে এই সামরিক মহড়া চালাচ্ছে চীন। তাইওয়ানের দাবি, চীনের মহড়ার কারণে ১৮টি আন্তর্জাতিক রুট বন্ধ করে দিতে হবে।

সংবাদমাধ্যম বলছে, মার্কিন হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফর নিয়ে তীব্র আপত্তি জানিয়েছিল চীন। তা সত্ত্বেও পেলোসি তাইওয়ান গেছেন। চীন এখন তাদের সামরিক শক্তির কিছুটা আভাস যুক্তরাষ্ট্রকে দেখিয়ে প্রতিবাদ জানাতে চাইছে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top