বাড়ি ফিরেছে রংপুরের নিখোঁজ সেই ৩ শিশু

rangpur-20220803193213.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : রংপুরের কাউনিয়ায় চার দিন ধরে নিখোঁজ থাকা সেই তিন শিশু বাড়ি ফিরে এসেছে। তবে তারা নিখোঁজ নয়, বরং পদ্মা সেতু দেখতে কাউকে না জানিয়ে ট্রেনে করে ঢাকায় গিয়েছিল বলে জানিয়েছে। বুধবার (৩ আগস্ট) দুপুরে তারা বাড়ি ফিরে আসে।

এর আগে গত ৩০ জুলাই শনিবার উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের মীরবাগ বাজার এলাকায় স্কুলের মাঠে খেলা দেখতে গিয়ে নিখোঁজ হয় তারা।

তারা হলো উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের শ্যামপুর গ্রামের নুর আলমের ছেলে ধর্মেশ্বর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র সাজেদুল ইসলাম (১১), একই গ্রামের শফিকুল ইসলামের (ছাইমুদ্দিন) ছেলে মনিরুল ইসলাম (১০) ও গদাধর গ্রামের মোশারফ হোসেনের ছেলে মাদরাসাছাত্র আব্দুল্লাহ আল পলাশ (১৩)। তারা সম্পর্কে তিন বন্ধু।

বাড়ি ফিরে আসা সাজেদুল জানায়, প্রায় দুই সপ্তাহ আগে তারা তিন বন্ধু মিলে বঙ্গবন্ধু সেতু দেখতে যাওয়ার পরিকল্পনা করে। গত শনিবার স্থানীয় মাঠে খেলা দেখতে যায় তারা তিনজন। পরে তারা কাউনিয়া স্টেশনে গিয়ে রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনে উঠে ঢাকায় যায়। তাদের কাছে টাকা না থাকায় তারা কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের পাশে একটি হোটেলে কাজ করে ৫০০ টাকা আয় করে। সেই টাকা দিয়ে ট্রেনের টিকিট কেটে বুধবার তিন বন্ধু মিলে বাড়িতে চলে আসে।

একই কথা জানায় আব্দুল্লাহ আল পলাশ ও মনিরুল ইসলাম। শুধু পদ্মা সেতু দেখার পরিকল্পনা থেকেই তারা ইচ্ছাকৃতভাবে নিখোঁজ ছিল না। বরং তাদের মা-বাবার প্রতিও অভিমান ছিল বলেও জানা গেছে।

আব্দুল্লাহ আল পলাশের বাবা মোশারফ হোসেন বলেন, ছাওয়া তো কওছে ওমরা বোলে পদ্মা সেতু দেইকপার জনতে বাড়ি থাকি ঢাকাত গেছল। ফির কায়ো কায়ো ওমার বাপ-মায়ের ওপর রাগ করি এটা করছে। যে কারণেই হউক তিন বন্ধু মিলি হামাক না জানেয়া নিখোঁজ থাকাটা ঠিক হয় না। আজই সাংবাদিক ভাইয়েরা পেপার-পত্রিকায় খবর করছে দেকি ছাওয়ারা ভয়ে তো বাড়ি চলি আসছে। ওই তকনে থানা-পুলিশ থাকি শুরু করি সাংবাদিক ভাইয়ের সবাগে হামার কৃতজ্ঞতা।

এ বিষয়ে কাউনিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রেজাউল ইসলাম রেজা বলেন, গত সোমবার এ বিষয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি হয়েছিল। তবে নিখোঁজ তিন শিশু দুপুরে বাড়ি ফিরে এসেছে। তারা পরিবারের সদস্যদের না জানিয়ে ঢাকায় গিয়েছিল। নিখোঁজ তিন শিশু বাড়ি ফিরে আসায় তাদের পরিবারের লোকজন আনন্দিত।

অন্যদিকে রংপুর জেলার সহকারী পুলিশ সুপার (সি সার্কেল) আশরাফুল আলম পলাশ জানান, ওই তিন শিশু তাদের অভিভাবকদের ওপর রাগ করে বাড়ি থেকে চলে গিয়েছিল। এ বিষয়ে তাদের অভিভাবকরা থানায় জিডি করলে পুলিশ তাদের উদ্ধারের জন্য তৎপরতা শুরু করে। এর মধ্যেই বুধবার দুপুরে তারা নিজ নিজ বাড়িতে ফিরে আসে। এ বিষয়ে শিশু ও তাদের অভিভাবকদের কাউন্সিলিং করা হয়েছে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top