ব্যবসায়ীকে অপহরণের পর ৫ কোটি টাকা ‍দাবি, গ্রেপ্তার ৫

khulna2-20220803190136.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদন : খুলনায় ব্যবসায়ীকে অপহরণের পর ৫ কোটি টাকা ‍মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা। এ ঘটনায় দীর্ঘ প্রায় ৬ ঘণ্টার শ্বাসরুদ্ধকর অভিযানের মাধ্যমে ভিকটিমকে উদ্ধারসহ ৫ অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৬।

গ্রেপ্তাররা হলেন গোপালগঞ্জ তেবাড়িয়ার মৃত ফিরোজ আলী শেখের ছেলে রাজু শেখ (২৫), নড়াইল নড়াগাতির মো. হাবিবুর রহমান মোল্লার ছেলে সাইফুল ইসলাম মোল্লা (৩০), একই জেলার পহরডাঙ্গা এলাকার মো. শহিদুল ইসলামের ছেলে মো. হোজাইফা আল বারী (২৮), খুলনা দৌলতপুর আঞ্জুমান রোডের মৃত মোতালেব বেগের ছেলে মো. রানা বেগ (৩০) ও খুলনার লবণচরা নিজ খামার এলাকার মো. আবু দাউদ মৌলঙ্গীর ছেলে মো. রাসেল মৌলঙ্গী (২৮)।

বুধবার (৩ আগস্ট) বিকেলে র‌্যাব-৬ এর সদর দপ্তর থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয় অপহৃত ভিকটিম মো. নিরু মোল্লা (৫০) গোপালগঞ্জ সদর বিজয়পাশা এলাকার ব্যবসায়ী। তার একটি ফিলিং স্টেশন ও ২টি ব্রিকস ফিল্ড রয়েছে।

গত ২ আগস্ট সকাল সাড়ে ৬টায় ভিকটিম নিজ বাড়ি গোপালগঞ্জ থেকে ব্যক্তিগত মাইক্রো বাসযোগে ব্যবসায়িক কাজে খুলনার উদ্দেশে রওনা করেন। সকাল পৌনে ৮টার দিকে খুলনা কেডিএ ময়ূরি আবাসিক প্রকল্পের মেইন গেটের সামনে সোনাডাঙ্গা বাইপাস মহাসড়কে পৌঁছানো মাত্র ৮/১০ জন মোটরসাইকেলে করে এসে গাড়িটিকে থামায়।

এ সময় অপহরণকারীরা জোরপূর্বক গাড়ির দরজা খুলে গাড়িতে উঠে ভিকটিমকে জীবন নাশের হুমকি দিয়ে অপহরণ করে। পরে চোখ বেঁধে খুলনার বিভিন্ন স্থানে নিয়ে ঘোরাঘুরি করে। এ ছাড়া অপহরণকারীরা ভিকটিমের কাছে ৫ কোটি টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।

মৃত্যুর ভয়ে ভিকটিম প্রাথমিকভাবে অপরহরণকারীদের ৫০ লাখ টাকা দিতে রাজি হন। এ সময় অপহরণকারীরা একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে (এসএম শামসুজ্জামান, হিসাব নং-০২০০০০৩২৫১১৬৭ অগ্রণী ব্যাংক গোয়ালপাড়া গ্রাম, খুলনা শাখায়) টাকা পাঠিয়ে দিতে বলে। তখন ভিকটিম নিরু মোল্লা তার ফিলিং স্টেশনের ম্যানেজার মাফিকুলকে ফোন দিয়ে ৫০ লাখ টাকা পাঠিয়ে দিতে বলেন।

ভিকটিমের স্ত্রী ও বড় ভাই সিরাজ মোল্লা তাৎক্ষণিক ঘটনাটি র‌্যাব-৬ এ অবহিত করেন। এ ঘটনার পর থেকে আসামিদের গ্রেপ্তারে র‌্যাব-৬ এর একটি আভিযানিক দল ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং গোয়েন্দা তৎপরতা অব্যাহত রাখে। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৬ এর ওই আভিযানিক দল গোয়েন্দা তথ্যের মাধ্যমে জানতে পারে অপহরণকারীরা কেএমপি খুলনার হরিণটানা থানাধীন ৩ নং গুটুদিয়া আল আকসা নগর এলাকায় অবস্থান করছে।

ওই তথ্যের ভিত্তিতে ২ আগস্ট সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় র‌্যাব-৬ খুলনার আভিযানিক দলটি কেএমপি খুলনার হরিণটানা থানাধীন ৩ নং গুটুদিয়া আল আকসা নগর এলাকায় প্রায় ৬ ঘণ্টার শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান পরিচালনা করে আসামি রাজু শেখ, সাইফুল ইসলাম মোল্লা, মো. হোজাইফা আল বারী, মো. রানা বেগ ও মো. রাসেল মৌলঙ্গীকে গ্রেপ্তার করে।

তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এই ঘটনার সঙ্গে তারা জড়িত বলে স্বীকার করে। পরবর্তীতে খুলনা জেলার হরিণটানা থানায় হস্তান্তর করত তাদের বিরুদ্ধে মামলা রুজুর কাজ প্রক্রিয়াধীন।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top