সুস্থ হয়েই নড়াইলের নদীভাঙন পরিদর্শনে মাশরাফি

image-153550-1596118606.jpg

সূর্যের আলো যখন আলোকিত করতে শুরু করেছে সমগ্র জনপদকে তখনি আলোকবর্তিকার মতো নদী ভাঙনে দুঃখী মানুষের মনে আশার আলো জ্বালাতে হাজির সাংসদ মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। দীর্ঘ ২৪ দিন করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার সময়ে বিশ্রাম নেয়ার কথা থাকলেও নড়াইলে এসে তিনি একবিন্দুও বসে নেই। সবসময় নড়াইলের মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।

মল্লিকপুর ইউনিয়নে নদী ভাঙন হচ্ছে এমন খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে হঠাৎ সেখানে উপস্থিত হন মাশরাফী। নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার মল্লিকপুর ইউনিয়নের মহিষাপাড়া ও করফা-আতশপাড়া এলাকার ভাঙন কবলিত এলাকায় গিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, প্রায় এক দশকেরও বেশি সময় ধরে এই এলাকায় ভাঙন চলছে। গত কয়েক বছরে বহু বসতবাড়ি, ফসলি জমি, লোহাগড়া-ইতনা সংযোগ সড়কের নদী তীরবর্তী অংশ, মল্লিকপুর ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, প্রাথমিক বিদ্যালয়, মসজিদ, বাজার, দোকান-পাট নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। বর্ষাকালে মঙ্গলহাটা, করফা, মহিশাপাড়া গ্রামের মানুষের স্বপ্নগুলো ডুবিয়ে নেয় মধুমতির তীব্র স্রোত।

পরিদর্শনের সময় সাংসদ মাশরাফীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন

নড়াইলের পানি উন্নয়ন বোর্ডের সদ্য যোগদানকৃত নির্বাহী প্রকৌশলী উজ্জ্বল সেন। আরো ছিলেন লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুন্সী আলাউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মসিউর রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুকুল কুমার মৈত্র, মল্লিকপুর ইউপি চেয়ারম্যান শিকদার মোস্তফা কামাল, সাবেক চেয়ারম্যান সাহিদুর রহমান, জেলা পরিষদ সদস্য সাজ্জাদ হোসেন মুন্নাসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!