সাতক্ষীরায় কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের ভিডিও ফেসবুকে পোষ্ট : যুবক গ্রেফতার

Satkhira-Picture-One-Rapper-Arrest-011.jpg

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার ভোমরায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে এক লম্পট যুবককে আটক করেছে সদর থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার বিকালে ভুক্তভোগীর পরিবার ওই লম্পটের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। আটক যুবকের নাম মাসুদ হোসেন। সে সদর উপজেলার ভোমরা লক্ষ্মীদাড়ী এলাকার শহিদুল ইসলামের ছেলে। এর আগে রোববার রাতে তার নিজ বাড়ি থেকে লম্পট মাসুদকে আটক করে পুলিশ।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ভোমরা লক্ষ্মীদাড়ী এলাকায় তালা কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের এক শিক্ষার্থী গতবছর তার চাচার বাড়িতে বেড়াতে যান। সেখানে যুবক মাসুদের সাথে তার পরিচয় হয়।
মেয়ের বাবা অভিযোগ করেন, ২০১৯ সালের ২৭ মে ও ৩ ডিসেম্বর তারিখে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একই এলাকার মাসুদ তার কন্যাকে ধর্ষণ করে। ওইসময় কৌশলে কন্যার আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও ধারণ করে ওই লম্পট মাসুদ। পরে ওই ছবি ও ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে কলেজ ছাত্রীর পিতার কাছে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। ওইসময় ৩০ হাজার টাকা দিয়ে কিছু ছবি দিলেও পরবর্তীতে আবারো ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে লম্পট মাসুদ। এই টাকা না দিলে ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ারও হুমকি দেয়।

এ বিষয়ে লম্পট যুবকের বড় ভাইয়ের কাছে অভিযোগ দিলে তিনিও চাঁদা টাকার জন্য চাপ দিতে থাকেন। একপর্যায়ে ওই লম্পট মাসুদের দাবিকৃত টাকা না দেয়ায় ছবি ও ভিডিও ইন্টারনেটসহ বিভিন্ন অ্যাপসে ছড়িয়ে দিতে থাকে।

অবশেষে ভুক্তভোগী মেয়ের পিতা বাদী হয়ে গত রোববার (২৬ জুলাই) সাতক্ষীরা সদর থানায় নারী নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। যার নং ৯০। উক্ত মামলায় পুলিশ অভিযুক্ত মাসুদকে ওইদিন রাতে আটক করে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top