খুলনার গণটিকা চালু ও টিকাকেন্দ্র বাড়ানোর আহ্বান বিএনপির

AddText_07-18-02.50.25-1.jpg

বিজ্ঞপ্তি : কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও খুলনা মহানগর সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেছেন,করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করতে হলে টিকা ও স্বাস্থ্যবিধি মানার কোন বিকল্প নেই। খুলনা অঞ্চলে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে উল্লেখ করে জরুরীভাবে গণটিকা চালু ও টিকা কেন্দ্র বাড়ানোর আহবান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, টিকা উৎপাদনের ক্ষেত্রে বড় সুযোগ পেয়েও হাতছাড়া করেছে সরকার। গত বছরের নভেম্বরে চীনের ২২ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বাংলাদেশ সফরে এসে এদেশের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে চীনের টিকা বাংলাদেশের উৎপাদনে সার্বিক সহযোগিতা করতে চেয়েছিলেন। বাংলাদেশ মেডিক্যাল রিসার্চ কাউন্সিল চীনের বিশেষজ্ঞ টিমের প্রস্তাবে অনুমোদনও দিয়েছিল। কিন্তু রহস্যজনক কারনে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে তা আর গুরুত্ব পায়নি। সে ভুলের মাশুল এবার গোটা জাতি দিচ্ছে।

রবিবার (১৮ জুলাই) নগরীর ২৯ ওয়ার্ডের কর্মহীন মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন।

সাবেক সাংসদ মঞ্জু আরও বলেন, হাসপাতাল বাড়িয়ে কোন লাভ হবে না। কারণ রাতারাতি ডাক্তার বানানো যাবে না। অভিজ্ঞ জনবল না থাকলে হাসপাতাল বাড়িয়েও চিকিৎসা সেবা দেওয়া যাবে না। যখন সংক্রমণ ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়বে, তখন চিকিৎসার অভাবে অনেকে মারা যাবে। করোনা সংক্রমণ রোধ করতে হলে স্বাস্থ্যবিধি মানার পাশাপাশি জনগণকে টিকার আওতায় আনতে হবে। কর্মহীন মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরন শেষে সাধারন মানুষকে সচেতন করার লক্ষ্যে নতুনবাজার এলাকায় মাস্ক বিতরণ করেন তিনি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জাফরুল্লাহ খান সাচ্চু, এড. ফজলে হালিম লিটন, রেহানা ঈসা, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, আরিফুজ্জামান অপু আসাদুজ্জামান মুরাদ, মহিবুজ্জামান কচিু, ইউসুফ হারুন মজনু, চৌধুরী হাসানুর রশিদ মিরাজ, মিজানুর রহমান মিলটন, মেজবাহ উদ্দিন মিজু, নাজমুল হক মুকুল, সিরাজুল ইসলাম লিটন, শাহ আলম, শামীম আশরাফ, এড. ওমর ফারুক বনি, মোস্তফা কামাল মিন্টু, ফিরোজ আহমেদ, এবাদুল ইসলাম, সাজ্জাত হোসেন জিতু, শরিফুল ইসলাম, কাওসারী জাহান মঞ্জু, মাসুদ রুমি, নেন্সি, রাহাত হোসেন, তুহিন ইসলাম, ফয়জুল ইসলাম বাবু প্রমূখ।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top