কয়রায় শর্তবিহীন অর্থ বিতরণ করেছে প্রদীপন

khulna-baribad-120191109104315.jpg

কয়রা উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ৪১৭ টি পরিবারে শর্তবিহীন নগত অর্থ বিতরণ করেছেন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা প্রদীপন। দাতা সংস্থা সেভ দ্যা চিলড্রেন এর অর্থায়নে প্রদীপন ৪ টি ইউনিয়নের ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থদের তালিকা তৈরি করে প্রতিটি পরিবারে নগত ৪,৫০০ টাকা বিতরণ করেন।

রবিবার সকাল ১০ টায় উত্তর বেদকাশি ইউনিয়ন পরিষদে ১০১ টি পরিবারে স্থানীয় চেয়ারম্যান সরদার নুরুল ইসলামের উপস্থিতিেিত এই অর্থ বিতরণ করেন সংস্থার প্রতিনিধিরা।

এ সময় সেভ দ্যা চিলড্রেনের প্রতিনিধি প্রজেক্ট অফিসার আব্দুল বাতেন, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা প্রদীপনের মোঃ মনির হোসেন, মোঃ জেনারুল হক, দেবাশিষ মন্ডল,সিনিয়র সাংবাদিক এসএম হারুন অর রশীদ প্রমুখ।

এ সময় চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বলেন, আম্পান পরবর্তী আজ ৩৮ দিন অতিবাহিত হলেও তার ইউনিয়নের ১২ হাজার মানুষ পানি বন্দী জীবন যাপন করছেন। এছাড়া নিজ ভিটায় ফিরতে পারিনি ২০০ শতাধিক পরিবার।

তিনি আরও বলেন, বাঁধ নির্মাণ না হওয়ায় নির্ঘম রাত কাটাচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ, তাই এ দূঃসময়ে সাড়ে ৪ হাজার টাকা একটি পরিবারের জন্য লক্ষ টাকার সমান।

তিনি সংস্থার প্রতিনিধিদের এই মহুর্তে আরও নগত অর্থ ও খাদ্য এবং গৃহ নির্মাণ করার জন্য অনুরোধ করেন।

এর আগে ১৮ জুন বাগালী ইউনিয়নে ৫০ এবং ২০ জুন মহারাজপুর ইউনিয়নে ১৩৬ ও কয়রা সদর ইউনিয়নে ১৩০ পরিবারে শর্তবিহীন নগত অর্থ বিতরণ করেছেন প্রদীপন।

অপর দিকে বিভিন্ন ইউনিয়নে নগত অর্থ বিতরণকালে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বরগন উপস্থিত ছিলেন এবং এসময় চেয়ারম্যানগণ সংস্থার প্রতি দাবী করে বলেন, মহামারি করোনার পর মরার উপর খাড়ার ঘাঁ ঘূর্ণিঝড় আম্পান। যে কারনে উপকূলীয় এলাকা কয়রার মানুষ দিশেহারা, সেজন্য ৮০ ভাগ পরিবার বর্তমান ক্ষতিগ্রস্থ। তাই এই দূর্যোগকালীন সময়ে বেশি বেশি সহযোগিতা করার দাবী জানিয়েছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!