পদ্মায় প্রবল স্রোত, পাটুরিয়ায় ৮ শতাধিক যানবাহন

manikganj-20220624122020.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : পানিবৃদ্ধির ফলে পদ্মায় প্রবল স্রোত থাকায় ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। এতে মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ফেরিঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ সারি তৈরি হয়েছে। ঘাট এলাকায় ছোট গাড়ি, বাস ও পণ্যবাহী ট্রাক মিলে নদী পারের অপেক্ষায় রয়েছে আট শতাধিক যানবাহন।

এদিকে সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় ভোর থেকেই বাস ও ছোট গাড়ির সংখ্যা বাড়তে থাকে। যাত্রী ভোগান্তির বিষয়টি বিবেচনা করে ফেরিঘাট কর্তৃপক্ষ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ব্যক্তিগত গাড়ি, দূরপাল্লার বাস এবং জরুরি পণ্যবাহী যানবাহন পার করছে।তবে নৌরুটে ছোট-বড় মিলে ২১টি ফেরির মধ্যে ২০টি ফেরি নৌবহরে চলাচল করায় ঘাট পার হতে আসা সব যানবাহনকে নিরাপদে নৌরুট পার করা যাবে বলে দাবি করছে ফেরিঘাট কর্তৃপক্ষ।

শুক্রবার (২৪ জুন) বেলা ১১টার দিকে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা কার্যালয়ের বাণিজ্য শাখার ব্যবস্থাপক মো. সালাম হোসেন এসব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, কয়েক দিন ধরে পানি বাড়ায় পদ্মায় প্রবল স্রোত রয়েছে। যে কারণে নৌরুটে ফেরি চলাচল কিছুটা ব্যাহত হচ্ছে। আর ফেরির ট্রিপ সংখ্যাও কমে গেছে। এ ছাড়া সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় সকাল থেকেই ঘাট এলাকায় যানবাহনের চাপ কিছুটা রয়েছে। ঘাট এলাকায় ১৫০টির বেশি ব্যক্তিগত গাড়ি, ১৩০টি বাস ও ৫ শতাধিক ট্রাক মিলে আট শতাধিক যানবাহন নদী পারের অপেক্ষায় রয়েছে।

আরও পড়ুন : শেরপুরে মা-মেয়ে খুন : মেয়েজামাই আটক

বিআইডব্লিউটিসি আরিচা কার্যালয়ের বাণিজ্য শাখার উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) শাহ মো. খালেদ নেওয়াজ বলেন, প্রতিবছরই বর্ষা মৌসুমে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে যাত্রী ও যানবাহন চালকদের কিছুটা ভোগান্তিতে পড়তে হয়। নদী স্রোত থাকায় ফেরিগুলো চলাচল ব্যাহত, সময় বেশি লাগাসহ ট্রিপও কমে যায়। তবে এ ক্ষেত্রে ছোট গাড়ি ও বাসের তুলনায় ট্রাকচালক ও সহযোগীদের ভোগান্তির মাত্রাটা একটু বেশি হয়।

তিনি আরও বলেন, আগামীকাল পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের রাজধানীর ঢাকার সঙ্গে যাতায়াতের দুটি মাধ্যম চালু থাকবে। ফলে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটের কিছুটা হলে যানবাহনের চাপ কমবে। এতে যাত্রীদের ভোগান্তিও থাকবে না বলে তিনি জানান।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top