খুলনার তিন হাসপাতালে ১১ করোনা রোগীর মৃত্যু

Khulna-corona-1.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক: খুলনার পৃথক তিনটি হাসপাতালে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (২১ জুন) সকাল ৮ টা থেকে মঙ্গলবার (২২ জুন) সকাল ৮ টা পর্যন্ত এই ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়।

খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের আওতাভুক্ত করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ফোকাল পার্সন ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাত জনের মৃত্যু হয়েছে। তারা সবাই করোনা আক্রান্ত ছিলেন।

মৃতরা হলেন, খুলনার তেরখাদার তাসলিমা বেগম (৮০), খালিশপুরের মোশারফ হোসেন (৬৪), রূপসার আঞ্জুমান আক্তার (৫৫), সোনাডাঙ্গার কাজী মাছরুফা (৬৩), সাতক্ষীরার তালার সৈয়দ শাহরিয়া (৭১), নড়াইল সদরের খাদিজা পারভীন (৩৮) ও বাগেরহাটের মোংলার লাকি বেগম (৫০)।

এ ছাড়া ১৩০ শয্যার এ করোনা হাসপাতালে সকাল ৮টা পর্যন্ত ১৪৯ জন রোগী ভর্তি ছিলেন। যার মধ্যে রেড জোনে ৯৮ জন, ইয়ালো জোনে ১৩ জন, এইচডিইউতে ১৮ জন এবং আইসিইউতে ২০ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ভর্তি হয়েছেন ২২জন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩৪জন।

গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের স্বত্বাধিকারী গাজী মিজানুর রহমান জানান, ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। তারা হলেন, খুলনা মহানগরীর সাতরাস্তা মোড়ের ফিরোজা বেগম (৫২), সোনাডাঙ্গার এস কে নুরুদ্দীন (৩১) ও যশোরের মনিরামপুরের বিজয় কুন্ডু (৬৭)।

তিনি আরও জানান, হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ৭৫ জন রোগী ভর্তি রয়েছে। এর মধ্যে আইসিইউতে ৬ জন এবং এইচডিইউতে ৫ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ২৪ জন ভর্তি হয়েছেন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৭ জন। এ ছাড়া হাসপাতালের আরটিপিসিআর মেশিনে ১৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

খুলনা জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. কাজী আবু রাশেদ জানান, ২৪ ঘণ্টায় করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেখ মোশারফ হোসেন (৭৬) নামের একজনের মৃত্যু হয়েছে। তার বাড়ি যশোরের নওয়াপাড়ায়।  এছাড়া হাসপাতালে বর্তমানে ভর্তি রয়েছেন ২৪ জন।

খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ জানান, সোমবার (২১ জুন) রাতে খুমেকের পিসিআর মেশিনে ৩৭৬জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৭৭জনের করোনা পজিটিভ এসেছে। যার মধ্যে খুলনার ৩২৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে ১৫১ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। এ ছাড়া বাগেরহাটে ১১জন, যশোরে ৫জন, সাতক্ষীরায় ৩জন, নড়াইলে ৩জন, কুমিল্লার ১ জন, নাটোরের ১জন, টাঙ্গাইলের ১জন এবং বরগুনার ১জন রয়েছে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top
error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!