ঝোঁপের ভেতর থেকে নবজাতক উদ্ধার

image-564762-1655780420.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : সোমবার রাতে ঢাকার ধামরাইয়ে একটি ঝোপের ভেতর থেকে উদ্ধার হয়েছে সদ্য ভূমিষ্ঠ এক নবজাতক। ওই নবজাতকটি কন্যাসন্তান। কান্নার আওয়াজ শুনে রাত ৮টার দিকে পৌরশহরের বরাতনগর আবাসিক প্রকল্পের ঝোপের ভেতর থেকে এ নবজাতকটি উদ্ধার করেন পোশাকশ্রমিকরা।

ওই নবজাতকের একটি চোখ, নাক ও মাথার চামড়া খেয়ে ফেলেছে পোকামাকড়ে। ওই নবজাতকটির চিকিৎসাসেবা দেওয়ার জন্য ধামরাই সরকারি আবাসিক হাসপাতালে গিয়ে চরম বিপাকে পড়েন সাংবাদিক, পুলিশ ও উদ্ধারকর্মীরা। অনেক বাকবিতণ্ডের পর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসকরা ওই নবজাতকের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন।ধামরাই থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সোমবার রাত ৮টার দিকে কারখানা ছুটি শেষে বাসায় পথিমধ্যে কয়েকজন পোশাকশ্রমিক কান্নার শব্দ পেয়ে বরাতনগর এলাকার ঝোপের ভেতর থেকে সদ্য ভূমিষ্ঠ ওই নবজাতকটি উদ্ধার করেন। এর পর ওই নবজাতকটি সাংবাদিক মো. ওয়াসীম হোসেনের শরণাপন্ন হলে তিনি ধামরাই থানা পুলিশকে খবর দেন এবং তোয়ালে দিয়ে নবজাতকটি জড়িয়ে দেন। পরে পুলিশের সহায়তায় তারা ওই নবজাতকের চিকিৎসাসেবা দেওয়ার জন্য ধামরাই সরকারি হাসপাতালে গেলে তারা চরম বিপাকে পড়ে যান। জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসাসেবা না দিয়ে ঢাকা শিশু হাসপাতালে নিতে বলেন। এ নিয়ে তাদের ওই চিকিৎসকের সঙ্গে চরম বাকবিতণ্ডা হয়। পরে ওই হাসপাতালের স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নুর রিফফাত আরার হস্তক্ষেপে ওই নবজাতকের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুন : তিন দিন ধরে বৃষ্টির পানি চসিক মেয়রের বাড়িতে

এ বিষয়ে সাংবাদিক মো. ওয়াসিম হোসেন বলেন, পোশাকশ্রমিকরা কান্নার আওয়াজ শুনে বরাতনগর আমার বাসার পশ্চিম পাশে একটি ঝোপের ভেতর থেকে ওই নবজাতকটি নিয়ে আসে। পুলিশের সহায়তায় ওই নবজাতকের চিকিৎসার জন্য ধামরাই সরকারি আবাসিক হাসপাতালে নিয়ে যাই। এ বিষয়ে ধামরাই উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নুর রিফফাত আরা বলেন, আজ সকালে জীবিত একটি মেয়ে নবজাতক হাসপাতালে ভর্তি ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে তার শারীরিক অবস্থা খুব একটা ভালো নয়।

এ বিষয়ে ধামরাই থানার ওসি পুলিশ পরিদর্শক মো. আতিকুর রহমান আতিক জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জীবিত অবস্থায় ওই নবজাতককে উদ্ধার করে সুস্থ রাখার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়েছে। সেই সঙ্গে কে এই নবজাতককে এভাবে ফেলে গেছে তাকে খুঁজে বের করার জন্য অভিযান চালানো হবে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top