যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উড়িয়ে দিলেন নেইমার

101719neyamr.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট :  ব্রাজিল সুপারস্টার নেইমার মাঠের বাইরে উদ্দাম জীবনযাপনের জন্য আলোচিত আর সমালোচিত। সবসময় হইচই করা পার্টি করায় নেইমারের জুড়ি নেই। একইসঙ্গে অসংখ্য মেয়েদের সঙ্গে বিছানায় যেতেও তিনি সিদ্ধহস্ত। বছর পাঁচেক আগে  নেইমারের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উঠেছিল। সেই মামলার তদন্তে সাহায্য করতে রাজি হননি নেইমার। যে কারণে তার সঙ্গে স্পনসরশিপ চুক্তি বাতিল করেছিল ক্রীড়া সামগ্রী প্রস্তুতকারক সংস্থা নাইকি।

সেই সংস্থার দাবি, নাইকির এক নারী কর্মীকে যৌন হয়রানি করেছেন পিএসজি তারকা নেইমার। তবে নেইমার নাইকির এমন অভিযোগকে উড়িয়ে দিয়েছেন। ব্রাজিল সুপারস্টারের দাবি, নাইকি সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা বলছে। নিজের ইনস্টাগ্রামে একটি বার্তার মাধ্যমে নেইমার জানান, নাইকির করা অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। তিনি কাউকে যৌন নিপীড়ন করেননি। তিনি এরকম কোনো নারীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করেননি।

২০১৬ সালে নিউইয়র্কে নাইকির এক অনুষ্ঠানে এসেছিলেন নেইমার। তখন হোটেলে নিজের রুমে নেইমার জোর করে সেই কর্মীকে যৌন হয়রানি করেন। নিজের বন্ধু-বান্ধব ও সহকর্মীদের সেই দিনের কথা জানিয়েছিলেন নাইকির সেই নারী কর্মী। ২০১৮ সালে এ নিয়ে মামলা করেন। পরের বছর বাইরের একটি আইনি প্রতিষ্ঠানকে এই অভিযোগ তদন্তের দায়িত্ব দেয় নাইকি।

নাইকির জেনারেল কাউন্সেল হিলারি ক্রেন বলেন, ‘বিশ্বাসযোগ্য অভিযোগের প্রেক্ষিতে শুরু হওয়া তদন্ত কার্যক্রমে সাহায্য করতে নেইমার অস্বীকৃতি জানানোয় নাইকি তার সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ করে।’তদন্ত চলাকালীন নাইকির বিপণন ও প্রচারে নেইমারকে আর দেখা যায়নি। শেষ পর্যন্ত গত বছর আনুষ্ঠানিকভাবে ১৫ বছরের সম্পর্কে ছেদ টানে দুই পক্ষ। পরে আরেক ক্রীড়া সরঞ্জাম প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান পিউমার সঙ্গে স্পনসর চুক্তি করেন নেইমার।

এবার নেইমার তার ইনস্টাগ্রামে লিখেন, ‘আমাকে নিজের আত্মপক্ষ রক্ষা করার সুযোগ দেওয়া হয়নি। আমি ওই নারীর সঙ্গে কখনও কোনো যৌন সম্পর্ক করিনি বা কোনো প্রস্তাবও দেইনি। এমনকি তার সত্যিকারের কষ্টটা বোঝার জন্য আমি তার সঙ্গে কথা বলার কোনও সুযোগ পাইনি। তিনি ছিলেন একজন কর্মচারী।আমি একজন অ্যাথলেট, আমিও সুরক্ষিত ছিলাম না।’

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top