চিতলমারীতে করোনা আক্রান্ত’র বাড়িতে খাদ্য ও ঔষধ পৌঁছে দিল প্রশাসন

100814828_244987466825642_1713297466947796992_n.jpg

বাগেরহাটের চিতলমারীতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কুমিল্লা থেকে আসা জুটমিল শ্রমিকের বাড়িতে উপজেলা প্রশাসন খাদ্য সামগ্রী ও ঔষধ পৌঁছে দিয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় উপজেলার হিজলা কাজিপাড়া গ্রামে আক্রান্তের বাড়িতে গিয়ে এগুলো পৌঁছে দেয়া হয়। এ সময় করোনা ভাইরাস আক্রান্তের ঘটনায় আরও একটি বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করেছে উপজেলা প্রশাসন। এর আগে আক্রান্ত’র বাড়িসহ আশেপাশের ৪ টি বাড়ি লকডাউনে ছিল। এ নিয়ে ওই এলাকার মোট ৫ টি বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করা হল। এছাড়া আগামী বৃহস্পতিবার আক্রান্ত ওই ব্যাক্তি ও তার পরিবারের সদস্যদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হবে।

মঙ্গলবার বিকেল ৪ টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মারুফুল আলম এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোঃ মামুন হাসান মিলন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মারুফুল আলম জানান, আক্রান্ত ওই ব্যাক্তি (৪২) উপজেলার হিজলা কাজিপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। তিনি কুমিল্লার একটি জুটমিলে কাজ করতেন। গত ২০ মে তিনি কুমিল্লা থেকে গ্রামের বাড়িতে আসেন। করোনা উপসর্গ থাকায় তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। হোম কোয়ারেন্টাইনে থেকে পালিয়ে তিনি পার্শ্ববর্তী গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় এক আত্মীয়র বাড়িতে যান। সেখানে তিনি আরও অসুস্থ হয়ে পড়লে ২৩ মে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স তার নমুনা সংগ্রহ করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠায়। ২৪ মে সে পুনরায় চিতলমারীর হিজলায় চলে আসে। ২৫ মে তার রিপোর্ট পজেটিভ আসে। এ খবর পেয়ে সোমবার রাতেই আক্রান্ত ব্যাক্তির বাড়িসহ আশেপাশের ৪ বাড়ি লকডাউন করে উপজেলা প্রশাসন। পরবর্তীতে আজ মঙ্গলবার (২৬ মে) সকাল ১১ টার দিকে ওই বাড়ির পাশের আরো একটি বাড়িসহ মোট ৫টি বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। সেই সাথে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত জুটমিল শ্রমিকের বাড়িতে খাদ্য সামগ্রী ও ঔষধ পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোঃ মামুন হাসান মিলন জানান, আগামী বৃহস্পতিবার আক্রান্ত ওই ব্যাক্তি ও তার পরিবারের সদস্যদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য, এ নিয়ে চিতলমারীতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ জন। এরা সবাই বাইরে থেকে করোনা আক্রান্ত হয়ে এলাকায় ফিরেছেন। এদের মধ্যে ফরিদপুরের ভাঙ্গা থেকে আসা পাটরপাড়া গ্রামের মোঃ কবিরুল মোল্লা (৩৫) ও ঢাকার জুরাইন থেকে আসা চরচিংগুড়ী গ্রামের স্বামী মোঃ ইমনার শেখ (২৫) এবং তার স্ত্রী সুমি আক্তার (১৮) (মোট ৩ জন) সুস্থ্য হয়েছেন।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!