শিশু ধর্ষণের অভিযোগে ইমামের যাবজ্জীবন

ran-20220526191411.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : রংপুরের তারাগঞ্জে এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে আতিকুল ইসলাম আতিক (২৫) নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করেছেন আদালত। যুবক আতিকুল ইসলাম আতিক স্থানীয় একটি মসজিদের ইমাম। তিনি ইমামতির পাশাপাশি মসজিদে শিশুদের আরবি শিক্ষা দিতেন।

বৃহস্পতিবার (২৭ মে) দুপুরে রংপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত-৩ এর বিচারক এম আলী আহমেদ এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় আদালতের কাঠগোড়ায় আসামি উপস্থিত ছিলেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালের ৪ নভেম্বর সকাল ৭টার দিকে দশ বছর বয়সী ওই শিশু তার বাড়ির পাশের মসজিদে আরবি পড়তে যায়। সেখানে ইমাম আতিকুল ইসলাম আতিক অন্যান্য ছেলে-মেয়েদের সঙ্গে ওই শিশুকে আরবি পড়াতেন। ঘটনার দিন সকাল ৮টার দিকে আতিক সব ছেলে-মেয়েকে ছুটি দিলেও ওই শিশু শিক্ষার্থীকে দেরিতে বাড়ি যেতে বলেন। এরপর সবাই চলে গেলে সুযোগ বুঝে ইমাম আতিকুল ইসলাম ওই শিশুটিকে মসজিদ সংলগ্নে তার থাকার ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। এবং এ ঘটনা কাউকে না জানানোর জন্য হুমকি দেয়।

শিশুটি বাসায় ফিরে যাবার পর প্রচণ্ড রক্তক্ষরণ শুরু হলে বিষয়টি জানাজানি হয়। এ ঘটনা শুনে ক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী ওই মসজিদের ইমাম আতিকুল ইসলাম আতিককে আটক করে। পরে গুরুতর অবস্থায় শিশুটিকে প্রথমে তারাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি  করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে পরে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় শিশুটির বাবা বাদী হয়ে তারাগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেন। মামলায় ১০ সাক্ষীর সাক্ষ্য দেন।

সাক্ষীদের জেরা ও শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার বিজ্ঞ বিচারক আসামি আতিকুল ইসলামকে দোষি সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।

মামলায় সরকারপক্ষের আইনজীবী বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) তাজিবুর রহমান লাইজু রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে ন্যায় বিচার পেয়েছেন বলে জানান।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top