খুলনায় ৪ বছর ধরে ১৪ পরিবারের চাল আত্মসাৎ করেছেন ডিলার মিজানুর

100050354_550705955632801_579139768219074560_n.jpg

ডিলার সরদার মিজানুর রহমান। ছবি: সংগৃহিত।

খুলনার রূপসায় ৪ বছর ধরে ১৪ টি পরিবারের চাল আত্মসাৎ করেছেন খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর ডিলার সরদার মিজানুর রহমান (৪৫) নামের এক ব্যাক্তি। যা জাতীয় নিরাপত্ত গোয়েন্দা (এনএসএই) সংস্থার তথ্যের ভিত্তিতে তদন্ত করে প্রমান পেয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

রূপসা উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, সরদার মিজানুর রহমান রূপসা উপজেলার শ্রীফলতলা ইউনিয়নের প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ১০ টাকা মূল্যে বিতরণ করা খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর ডিলার। ২০১৬ সাল থেকে তিনি ১৪ টি পারিবারে চাল নিয়মিত আত্মসাৎ করে আসছেন। নাম থাকা সত্যেও চাল না পাওয়া ওই ১৪ ব্যাক্তিরা হলেন, উপজেলার নন্দনপুর গ্রামের শাহিদ শেখ, মো: সেলিম শেখ, মো: আনিচুর রহমান, মো: সাইদুর রহমান, খালেদা বেগম, মো: জাহিদ মুন্সি, মো: মুকুল শেখ, মো: কামাল শেখ, মো: রফিকুল শেখ, মমতাজ, নাসিম হাওলাদার, ওলিয়র হাসান, আসলাম খাঁ ও মো: ফারুক হাওলাদার।

তারা জানান, তাদের নাম, ছবি ও ন্যাশনাল আইডি কার্ড নেওয়া হয়েছিল ২০১৬ সালে। তবে তাদের নামে কার্ড হয়েছে কিনা তা জানেন না। তারা কখনো ১০ টাকা মূল্যের এই চাল উত্তোলন করেননি।

জানা গেছে, ডিলার সরদার মিজানুর রহমান ওই এলাকার একজন প্রভাবশালী ব্যাক্তি এবং তিনি শ্রীফলতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

এ বিষয়ে জানতে মিজানুর রহমানকে একাধিকবার ০১৯৩৬****৪৮ এই নাম্বের একধিকবার কল দিলে তিনি রিসিভ করেন নি।

রূপসা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন আক্তার বলেন, ‘আমি বিষয়ে বিষয়ে অভিযোগ পাওয়ার পর সরেজমিনে তদন্ত করতে গিয়েছিলাম। এসময়ে আমার সাথে রূপসা থানার ওসি ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ছিলেন। ভুক্তভূগীদের বক্তব্য নেওয়া হয়েছে। তারা জানিয়েছেন, ২০১৬ সাল থেকে তাদের এ চাল দেওয়া হচ্ছে না, এমনকি তারা জানোও না যে তাদের নামে কার্ড আছে। সুতারাং ডিলার সরদার মিজানুর রহমান যে তাদের চাল আত্মসাৎ করেছেন তাতে কোন সন্দেহ নেই। আমরা এর চূড়ান্ত প্রতিবেদন তৈরি করছি। ওই ১৪ ব্যাক্তির এ যাবৎ কালের ক্ষতি পূরণ আদায়সহ তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!