যশোরে জুয়া খেলা ও মাদকদ্রব্য কেনাবেচার বিরোধের জেরে দু’জন গুলিবিদ্ধ

Screenshot_2020-05-04-বিএনপি-নেতাকে-লক্ষ্য-করে-ছোড়া-গুলি-শ্রমিক-নেতার-পেটে-বিদ্ধ.png

জুয়া খেলা ও মাদকদ্রব্য কেনাবেচার বিরোধের জেরে যশোর শহরের বকচর হুশতলা এলাকায় পরিবহন শ্রমিক সমিতির এক নেতাসহ দুইজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। সোমবার (০৪ মে) সন্ধ্যায় গুলিবিদ্ধ হন তারা।

এর মধ্যে সমিতির সহ-সাধারণ সম্পাদক মিন্টু গাজীর পেটে গুলি লেগেছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় এয়ার অ্যাম্বুলেন্সযোগে তাকে ঢাকা নেয়া হয়েছে। আহত অন্য ব্যক্তির নাম ইমদাদুল। হাতে গুলিবিদ্ধ হওয়া এই ব্যক্তি আশঙ্কামুক্ত।

মিন্টু গাজী বকচর হুশতলা এলাকার আব্দুল হামিদ গাজীর ছেলে এবং পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সহ-সাধারণ সম্পাদক। আহত মোটরশ্রমিক ইমদাদুল ৯ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক।

আহত ইমদাদুল বলেন, ওই এলাকার চিহ্নিত দুর্বৃত্ত বিল্লাল ওরফে চোর বিল্লাল, লিটন, সাইফুল, লাল্টুসহ বেশ কয়েকজন প্রতিদিন হুশতলা এলাকায় জুয়া খেলেন। এ নিয়ে এলাকার নয়নের সঙ্গে বিরোধ তৈরি হয়। বিষয়টি জেনে মীমাংসার প্রস্তাব দেই আমি।

তিনি বলেন, সোমবার বিকেলে ইফতার নিয়ে বাড়ি ফিরছিলাম। পথে তাদের সঙ্গে দেখা হলে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে মিন্টু গাজী আমার হাত ধরে রাখেন এবং বিল্লাল গুলি চালান। আমি সরে গেলে ওই গুলি মিন্টুর পেটে লাগে। একটি গুলি আমার হাতেও লেগেছে। পরে তারা চলে গেলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে আমাদের দুইজনকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক আব্দুর রশিদ বলেন, মিন্টু গাজীর পেটের মধ্যে গুলি রয়ে গেছে। তাকে জরুরি ভিত্তিতে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে যশোর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোর্তজা হোসেন বলেন, মিন্টু গাজীর বাড়ির সামনে গোলাগুলি হয়েছে। একটি গুলি তার পেটে লেগেছে। তাকে ঢাকায় নেয়া হয়েছে।

যশোর কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান বলেন, বকচর হুশতলায় গুলিতে এক শ্রমিক নেতা আহত হওয়ার সংবাদ শুনেছি। ওই এলাকার দুর্বৃত্তদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top