খুলনার চুই ঝালের প্রেমে পড়েছে দর্শনা

Opera-Snapshot_2021-05-03_201043_www.prabartan.com_.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট: ‘লাইট, ক্যামেরা, অ্যাকশন’ থেকে ব্রেক মিলেছে হঠাৎ। মেকআপ ব্রাশে লাস্ট মিনিট টাচ আপের ঝক্কি থেকেও রেহাই মিলেছে বেশ কয়েক দিনের। নেই কলটাইমের টেনশনও। করোনা আতঙ্কের জেরে শুটিং বন্ধ। তাই অভিনেত্রী দর্শনা বণিক আপাতত মজে রয়েছেন নেটফ্লিক্সের সিরিজে।

গত বছর প্রথম বার এপার বাংলার ছবিতে হাতেখড়ি হয়েছিল দর্শনার। ছবির নাম ‘অপারেশন সুন্দরবন’। পরিচালক দীপঙ্কর দীপন। সেই সময়ে খুলনায় এসেছিলেন দর্শনা।

খুলনাতেই প্রথম ‘সিগনেচার ডিশ’ চেখে দেখার সৌভাগ্য হয়েছে দর্শনার। নাম ‘চুই ঝাল’। রাত ১২টার সময় তাঁকে সেই ডিশ খাইয়েছিলেন বাংলাদেশের অভিনেতা দিপু ইমান।

“রাত ১২টা বেজে গিয়েছিল একদিন প্যাকআপ হতে হতে। এমন সময় দিপুদা আমার জন্য ওই চুই ঝাল নিয়ে আসে। চুই পাতা দিয়ে রান্না করা ঝাল ঝাল একটা আইটেম। মাটন চুই ঝাল খেয়েছিলাম। কী ভাল খেতে। মুখে লেগে আছে। খুলনা গেলে সবাই কিন্তু এক বার ওই পদটা টেস্ট করে দেখবেন। আমিতো চুই ঝালের প্রেমে পড়ে দিয়েছি”, বলেন দর্শনা।

একসময় সুন্দরবনের ভয়ঙ্কর জলদস্যুদের হাড়হিম করা আখ্যানের কথা তো অনেকেরই জানা। সুন্দরবন থেকে জলদস্যু মুক্ত করার অভিযান নিয়ে প্লট এগোবে এই ছবির। সঙ্গে জুড়বে সাব প্লট। আর এমনই এক সাব প্লটের অংশ দর্শনা। তাঁর চরিত্রের নাম অদিতি। পেশায় ডাক্তার। জলদস্যু মুক্ত করার অভিযানে তিনিও কী ভাবে জুড়ে যান, চমক সেখানেই।

দর্শনার গলায় উচ্ছ্বাস, “বাংলাদেশে আগে এত হাই-বাজেট ছবি হয়নি। সব সময় দু’টো হেলিকপ্টার সেটে থাকত। স্পিডবোট, জাহাজ, কী নেই! একজন বলছিলেন কলকাতাতেও হয়তো এত বড় বাজেটের ছবি হয়নি। সেটা ঠিক জানা নেই, তবে সত্যিই বিরাট ব্যবস্থা।”

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top
error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!