সাজা এড়াতে ১২ বছর পালিয়েও শেষ রক্ষা হলো না বাবা-ছেলের

download-2022-04-18T143801.354.jpg

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : বাবা-ছেলের নামে মোট মামলা ১২টি। এর মধ্যে সাজা হয়েছে ১০টি মামলায়। বাবার চার বছর, ছেলের তিন বছর এক মাস। কিন্তু এই সাজা থেকে বাঁচতে বাবা-ছেলে আত্মগোপনে ছিলেন ১২ বছর। অবশেষে তাদের গ্রেফতার করেছে চুয়াডাঙ্গা থানা পুলিশ।সোমবার (১৮ এপ্রিল) দুপুর ২টার দিকে তাদের চুয়াডাঙ্গার আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়।গ্রেফতাররা হলেন- চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার হাজরাহাটি গ্রামের মৃত করম আলী মুন্সীর ছেলে রুহুল আমিন (৬৭) ও তার ছেলে সামসুজ্জান ওরফে বাপ্পি (৩২)।

আরও পড়ুন : শুটিং দেখতে এসে অভিনয়ে চঞ্চল চৌধুরীর ছেলে

চুয়াডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন বলেন, বাবা-ছেলে দীর্ঘদিন ধরেই পলাতক ছিলেন। তাদের বিরুদ্ধে মোট ১২টি মামলা রয়েছে। সবগুলো মামলাই চেক প্রতারণার। এসব মামলার চারটিতে বাবার বিরুদ্ধে বিভিন্ন মেয়াদে মোট চার বছর কারাদণ্ড ও ৫৮ লাখ টাকা জরিমানা এবং ছেলের বিরুদ্ধে ছয়টি মামলায় বিভিন্ন মেয়াদে মোট তিন বছর এক মাস কারাদণ্ড ও ২৯ লাখ টাকা জরিমানা করেন আদালত। সাজা হওয়ার পর থেকেই তারা পলাতক ছিলেন।ওসি আরও বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাতে ঢাকার ধানমন্ডি এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। সোমবার দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top