অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন খুলনার কিন্ডারগার্টেন শিক্ষকেরা

93562191_848744898981367_7139500419331391488_n.jpg

সাংবাদিক মিনা অছিকুর রহমান দোলন ।

মিনা অছিকুর রহমান দোলন : মরণঘাতী করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় গত মার্চের মাঝামাঝি সময়ে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক দেশের সরকারি-বেসরকারি সকল প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি কিন্ডারগার্টেন স্কুল গুলিও বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এতে করে, একদিকে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হবার পাশাপাশি অনিশ্চয়তার মধ্যে দিনাতিপাত করছেন এসকল কিন্ডারগার্টেন স্কুলের পরিচালক ও শিক্ষকেরা। গোটা খুলনা জেলায়ও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি। দেশের শতকরা ৯৫ ভাগ কিন্ডারগার্টেন স্কুল পরিচালিত হয় ভাড়া বাড়িতে।

জেলা শিক্ষা অফিসের সুত্রমতে, খুলনা জেলায় ২শত ৪১টি কিন্ডারগার্টেন স্কুল রয়েছে। এর মধ্যে খুলনা সদরেই রয়েছে শতাধিক কিন্ডারগার্টেন স্কুল। এসকল স্কুলে কর্মরত রয়েছেন ৩ সহস্রাধিক শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারী। বাড়িভাড়া ও শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন প্রদান, বিদ্যুৎ বিলসহ অন্যান্য খরচ যোগাতে হিমসিম খেতে হয় প্রতিষ্ঠানগুলির পরিচালকদের।

একটি সুত্রে জানা যায়, অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানে গত ফেব্রুয়ারী মাসের বাড়িভাড়া ও শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন এখনও পরিশোধ হয়নি। এরই মধ্যে করোনার কারণে স্কুল গুলি ১মাস বন্ধ অতিবাহিত হয়েছে। এতেকরে, স্কুল প্রশাসন চোখে সর্ষের ফুল দেখছে। সামান্য বেতন ভোগী শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সম্পুর্ণ অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। অধিকাংশ পরিবারের মাঝে জুটছে না তিনবেলা খাবার।

খুলনাস্থ কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের নের্তৃবৃন্দের সাথে কথা বললে তারা জানান, উদ্ভুত পরিস্থিতিতে স্কুলের বাড়ীওয়ালাদের ভাড়ার ব্যাপারে কিছুটা নমনীয় হতে হবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে স্কুলগুলি খুললে সকল ঝামেলার অবসান ঘটবে। পাশাপাশি এসকল প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের খাদ্য সহায়তা প্রদান করতে জেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

লেখক: সম্পাদক, সাপ্তাহিক খুলনার দর্পণ

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!