বাঘারপাড়া উপজেলার ভূমি অফিস ঝুঁকিরপূর্ণ

Land-Office.jpg

যশোর অফিস, Prabartan | আপডেট: ২২:২৮, ০৯-০৪-১৯

সরকারের সু-নজর ও সহযোগীতা পেলে জন সাধারণের অতি গুরুত্বপূর্ণ কার্যালয় হিসাবে খ্যাত যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার বাসুয়াড়ী ভূমি অফিসটি হতে পারে মডেল।

দীর্ঘবছর ধরে এই ভূমি অফিসটি জরার্জীণ অবস্থায় থাকার কারণে কর্মকর্তা / কর্মচারীগণ অত্যন্ত ঝুঁকির মধ্যে তাদের নিত্য কাজ কর্ম পরিচালনা করে আসছেন। ক্ষয়-ক্ষতির আশাঙ্খায় বেশির ভাগ সময়ে তারা ভবনের বাহিরে অবস্থান করে থাকেন। ভবনটির এই জরাজীর্ণ হাল চিত্র তুলে ধরে ইতিপূর্বে স্থানীয় ও জাতীয় সংবাদপত্র সহ একাধিক মিডিয়ায় স্বচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হলেও আজ পর্যন্ত তা সরকারের সু-নজরে আসেনি বলে প্রতিয়মান হচ্ছে।

যে বিষয়ে স্থানীয় জন সাধারণ অনেকটা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন কারণ তাদের জমি-জায়গার গুরুত্বপূর্ণ ডুকুমেন্ট সেখানে সংরক্ষিত থাকে। সম্প্রতি এ বিষয়ে কথা হয় বর্তমান দায়িত্বপ্রাপ্ত উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তার সাথে। তিনি বলেন আমার পূর্বে একাধিক কর্মকর্তা / কর্মচারী এখানে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে গেছেন। তাঁরা সরকারের সংশ্লিষ্ঠ মন্ত্রণালয়ে ভবনের বিষয়ে আবেদন করেছেন বলে আমি শুনেছি। যোগদানের পর থেকেই পুরনো এই ভবনটিতে অত্যন্ত ভয়-ভীতি মধ্যে নিত্য কাজকর্ম পরিচালনা করে আসছি। কোন কোন সময় ভবনের বাহিরে বসে প্রতি দিনের কাজকর্ম পরিচালনা করতে হয়। কারণ প্রতি নিয়তই ভবনের কোন না কোন অংশ খসে পড়ছে। বৃষ্টির সময় পানিতে আলমারিতে রাখা গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র ভিজে নষ্ট হয়ে যায়। এজন্য সরকারের সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের ভবনটির বিষয় সু-নজর দেওয়া অতি জরুরী বলে তিনি মনে করেন।

সূত্র জানায় ১৮১০ সালের দিকে তৎকালীন জমিদার বাড়ি হিসাবে নির্মিত হয় ভবনটি। কালের আবর্তে এলাকার সকল স্থাপত্ত বিলিন হলেও অখ্যাত অবস্থায় রয়ে যায় এই জমিদার বাড়িটি। শুনাযায় জমিজার আমলেও এই প্রাসাদটি অত্র অঞ্চলের কৃষকদের খাজনা আদায়ের কেন্দ্র হিসাবে পরিচিত ছিল। যা দেশ স্বাধীনের পরবর্তী সময় থেকে শুরু করে আজ পর্যন্ত ইউনিয়ন ভূমি অফিস হিসাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top