আবদুস সালাম স্মারক বৃত্তি পেলেন ঢাবির ৫ শিক্ষার্থী

01-20220404152643.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের বিএসএস সম্মান পরীক্ষায় ভালো ফল অর্জনকারী পাঁচ শিক্ষার্থী পেয়েছেন ‘সম্পাদক আবদুস সালাম স্মারক ট্রাস্ট ফান্ড’ বৃত্তি।

বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা হলেন, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ১১তম ব্যাচের পাঁচজন কৃতী শিক্ষার্থী মো. সোহাগ আলী, স্বপ্না পারভিন, মো. খোকন আলী, জোবায়ের আহম্মেদ ও মো. আব্দুল মালেক।

এছাড়া সাংবাদিকতা শিক্ষায় অসামান্য অবদানের জন্য গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক শামসুল মজিদ হারুন পেয়েছেন আজীবন সম্মাননা।

আরও পড়ুন : রপ্তানি আয়ে সুবাতাস

সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধ্যাপক মুজাফ্‌ফর আহমদ চৌধুরী মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে বৃত্তির চেক তুলে দেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আবুল মনসুর আহাম্মদের সভাপতিত্বে ও বিভাগের অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মমতাজ উদ্দিন আহাম্মদ। অনুষ্ঠানে স্মারক বক্তব্য দেন বিশিষ্ট সাংবাদিক মনজুরুল আহসান বুলবুল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘সম্পাদক আবদুস সালাম স্মারক ট্রাস্ট ফান্ড’ গঠনের জন্য প্রয়াত সাংবাদিক এবিএম মূসা আর্থিক অনুদান দিয়েছিলেন। মেধা, দক্ষতা, দেশপ্রেম ও অনন্য পেশাদারিত্বের কারণে তারা ব্যক্তি পর্যায় থেকে প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছিলেন। সাংবাদিকতা জগতের এ দুই দিকপাল সমাজে মানবিক মূল্যবোধ ও দেশাত্মবোধ জাগ্রত করার লক্ষ্যে আজীবন কাজ করে গেছেন। তাদের জীবন ও কর্ম অনুসরণ করে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে ওঠার জন্য তিনি শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান।

স্মারক বক্তৃতায় মনজুরুল আহসান বুলবুল ‘সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টিতে বর্তমান গণমাধ্যমের ভূমিকা’ বিষয়ে বক্তব্য দেন। বক্তব্যে তিনি গণমাধ্যমের স্বাধীনতার সংকট, দায়িত্বশীলতা ও নৈতিকতার সংকট, নিরাপত্তার সংকট, বিচারহীনতার সংস্কৃতি, জবাবদিহিতার সংকট, সততার সংকট, পেশাদারিত্বের সংকট ইত্যাদি বিষয় তুলে ধরেন।  কীভাবে এসব সংকট থেকে উত্তরণ ঘটানো যায় সে বিষয়েও দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন তিনি।

অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে অনুষ্ঠানের সভাপ্রধান ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আবুল মনসুর আহাম্মদ বক্তব্য দেন।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top