ওয়ার্নকে শেষ শ্রদ্ধা জানাল পরিবার ও বন্ধুরা

warne-20220320111336.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : বাবা কেইথ ওয়ার্ন আসছেন, পাশে তার আরও এক ভদ্রলোক। কেইথের নজর মাটিতে। ছেলেকে হারানোর শোকে তিনি পাথর হয়ে গেছেন, ছবিটা যেন তারই প্রমাণ। কালো সানগ্লাস পরা মাইকেল ক্লার্ক ব্লেজারের পকেটে হাত দিয়ে টিস্যু বের করছেন কি না, ‍বুঝা যাচ্ছে না। তবে তিনিও যে বন্ধুকে হারানোর শোকে আছেন, বোঝা যাচ্ছে স্পষ্ট।

এসব দৃশ্য স্পিন কিংবদন্তি শেন ওয়ার্নকে দেওয়া পারিবারিক ও বন্ধুদের শেষ বিদায়ের। রোববার ব্যক্তিগত এই বিদায়ের আয়োজন করা হয় সেন্ট কিল্ডা ফুটবল ক্লাবে। এ সময় ওয়ার্নের ছেলে জ্যাকসনকে বাবার কফিন বহন করতেও দেখা গেছে। ছিলেন তার দুই বোন ব্রুক ও সামারও। ওয়ার্নের বাবা কেইথ ও মা ব্রিজেটও ছেলেকে শেষ বিদায় জানান।

৮০ জনের মতো ব্যক্তি ওয়ার্নের এই ব্যক্তিগত বিদায়ে অনুষ্ঠানে ছিলেন বলে জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়ান সংবাদ মাধ্যম। এর মধ্যে ছিলেন ব্যক্তিগত বন্ধু, সাংবাদিক, খেলার মাঠের সতীর্থ এমনকি প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়ও। সাবেক ইংল্যান্ড অধিনায়ক মাইকেল ভন অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন।

আরও পড়ুন : ইউক্রেনে আটকে পড়া শিবির থেকে মুক্ত আরও দুই বাংলাদেশি

পুরো অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা করেন আমেরিকান গায়ক ম্যাগুয়ের। শুরুতে তিনি বলেছেন, ‘ওয়ার্ন মানুষের জন্য খেলেছে। সে ছিল সুপারম্যান। বাচ্চা হিসেবে যা কিছু করার স্বপ্ন দেখেন, ওয়ার্ন সব করেছেন। সে হ্যাটট্রিক করেছে, ৭০০ উইকেট নিয়েছে। গ্যাটিংকে ওই বলটা করেছে।’

এসেছিলেন বন্ধু মাইকেল ক্লার্ক।অস্ট্রেলিয়ার টিভি অনুষ্ঠানের কমেডি চরিত্র নিউম্যানও হাজির হয়েছিলেন এই অনুষ্ঠানে। তিনি বলেছেন, ‘শেন ওয়ার্নের পরিবার, কাছের বন্ধুদের দেখতে পারা দারুণ ব্যাপার…আমি জানি না তারা কীভাবে এটা করেছে, কিন্তু তারা নিজেদের একসঙ্গে করতে পেরেছে। এই পরিস্থিতিতে যেমন অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া হওয়া দরকার ছিল, তেমনই হয়েছে।

আমি আশা করি এমসিজে মানুষে ভর্তি থাকবে তাকে ট্রিবিউট জানাতে।অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়া সবাই কিছুক্ষণের জন্য শেন ওয়ার্নকে ট্রিবিউট জানিয়ে নিজেদের স্মৃতি রোমন্থন করেন। গত ৪ মার্চ থাইল্যান্ডে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি ক্রিকেটার শেন ওয়ার্ন। আগামী ৩০ মার্চ মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে রাষ্ট্রীয়ভাবে সম্মান জানিয়ে শেষ বিদায় জানানো হবে তাকে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top