‘জলবায়ু পরিবর্তনজনিত অভিবাসন মোকাবেলায় প্রয়োজন সমন্বিত উদ্যোগ’

IMG_99311.jpg

বিজ্ঞপ্তি: বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা অ্যাওসেড এবং এ্যাকশন এইড বাংলাদেশের জলবায়ু পরিবর্তনজনিত উদ্বাস্তুদের নিয়ে উপাত্তসমূহ শেয়ারিং এর উদ্দেশ্যে শনিবার (২০ মার্চ ) খুলনার দ্যা গ্র্যান্ড প্লাসিড হোটেলে ‘জলবায়ু পরিবর্তনজনিত অভিবাসনঃ প্রেক্ষিত-খুলনা’ শীর্ষক এক মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার এমপি। সভায় গবেষণা সারাংশ উপস্থাপন করেন এ্যাকশন এইড বাংলাদেশের রেজিলিয়েন্স অ্যান্ড ক্লাইমেট জাস্টিস প্রোগ্রামের লিড তানজির হোসেন।

অ্যাওসেড’র নির্বাহী পরিচালক শামীম আরফীনের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষজ্ঞগণ খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর ও গ্রামীণ পরিকল্পনা ডিপার্টমেন্টের অধ্যাপক ড মোস্তফা সরোয়ার এবং খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের অধ্যাপক ড দীলিপ কুমার দত্ত মাতামত প্রদান করেন

প্যানেল আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন পরিবেশ অধিদপ্তর খুলনার পরিচালক সাইফুর রহমান খান, ফ্রোজেন ফুড অ্যাসোসিয়েশন খুলনার পরিচালক মোঃ রেজাউল হক, এফ আর জুট মিলের পরিচালক শরিফ মোহাম্মদ ফাইকুজ্জামান। সভায় জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে স্থানচ্যুত হয়ে খুলনায় বসবাসকারী মানুষদের প্রতিনিধিগণ তাদের অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষেত্রে কি কি সমস্যার সম্মুখীন হয়ে আসছে তা মুক্ত আলোচনার মাধ্যমে তুলে ধরেন। সভায় উপস্থাপিত সমস্যার প্রেক্ষিতে খুলনায় জলবায়ু অভিবাসীদের নিয়ে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিগণ সমস্যার সমাধানকল্পে কথা বলেন। এঁদের মধ্যে কারিতাসের আঞ্চলিক পরিচালক দাউদ জীবন দাস, জিআইজেড বাংলাদেশের সন্দীপ রায়, ইউসেপের প্রতিনিধি মোঃ আবু তাহের জলবায়ু উদ্বাস্তুদের কারিগরি সক্ষমতা বৃদ্ধিসহ তাদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির জন্য নানা ধরণের উদ্যোগ গ্রহণের প্রযোজনীয়তা সম্পর্কে আলোকপাত করেন।

প্রধান অতিথি পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার এমপি বলেন, বাংলাদেশ সরকার ইতোমধ্যেই জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবেলা এবং পরিবেশ রক্ষায় নানা ধরণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। বিশেষ করে দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলে জলবায়ু অভিবাসন হ্রাসকল্পে বিভিন্ন মেয়াদী প্রকল্প গ্রহণ করেছে। তিনি মনে করেন জলবায়ু উদ্বাস্তুদের সমস্যা সমাধানকল্পে সরকারী উদ্যোগের পাশাপাশি বেসরকারী উদ্যোগসমূহও সমান গুরুত্বপূর্ণ বলে অভিমত ব্যক্ত করেন।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top