মসজিদে হামলা নিয়ে বিশ্বের মুসলিম নেতাদের বক্তব্য

Imran-ardogan-mahatir-ruhani-imran2.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট, prabartan | প্রকাশিত: ১৮:৫৮, ১৬- ০৩-১৯

ক্রাইস্টচার্চ শহরের দুটি মসজিদে শুক্রবার জুমার নামাজের সময় এক বন্দুকধারীর বর্বরোচিত হামলায় কমপক্ষে ৪৯ মুসল্লি নিহত ও অপর ৪৮ জন আহত হন। দেশটির প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন এ ঘটনাকে সন্ত্রাসী হামলা বলে এর নিন্দা জানিয়েছেন।

এদিকে এ ঘটনায় ক্ষোভে ফুঁসছে মুসলিম বিশ্ব। শুক্রবার ওই হামলার আগে টুইটারে ইসলামফোবিয়া ও মুসলিমবিদ্বেষী নানা বক্তব্যে ইশতেহার প্রকাশ করে ভয়ংকর সন্ত্রাসী ব্রেনটন টেরেন্ট। বিভিন্ন দেশের মুসলিম নেতাদের বক্তব্য ও বিবৃতিতে ফুটে উঠেছে সেই ক্ষোভ।

ওই হামলার কয়েক ঘণ্টা পরই তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান বলেন, ‘বিশ্বজুড়ে গণহত্যার শিকার হচ্ছে মুসলিমরা। কিন্তু মুসলমানদের বিরুদ্ধে শত্রুতা গুরুত্বহীনভাবে বিবেচনা করছে বিশ্ব। মুসলমানদের যে ব্যক্তিগতভাবে হয়রানি করার ঘটনা ঘটত, সেটা ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদের হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে সীমান্ত ছাড়িয়ে গণহত্যায় রূপ নিয়েছে।’

কিছু চিহ্নিত পশ্চিমা দেশের পক্ষ থেকে ইসলাম-আতঙ্ক ছড়িয়ে দেওয়ার যে চেষ্টা হচ্ছে তার বিরুদ্ধে সর্বাত্মক আন্তর্জাতিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি।

বলেছেন, শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের দুটি মসজিদে যে ভয়াবহ গণহত্যা চালানো হয়েছে তার পরিপ্রেক্ষিতে এই প্রতিরোধ জরুরি হয়ে পড়েছে।

রুহানি শুক্রবার এক বার্তায় মুসল্লিদের ওপর ‘সন্ত্রাসী ও বর্ণবাদী’ হামলার তীব্র নিন্দা জানান। তিনি এ গণহত্যাকে ‘বর্বরোচিত ও বেদনাদায়ক’ ঘটনা অভিহিত করেন।

বলেন, এ ঘটনায় গোটা বিশ্বের মুসলমানদের পাশাপাশি ইরানি জনগণও বেদনাহত হয়েছে।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, সন্ত্রাসবাদ কখনও ধর্ম হতে পারে না। নিহত ও তাদের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

মিসরের আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও আল আজহার মসজিদের প্রধান ইমাম শেখ আহমেদ আল-তায়েব লোমহর্ষক এই গণহত্যার কড়া নিন্দা জানিয়েছেন।

বলেছেন, লোমহর্ষক এই সন্ত্রাসী হামলা দেশে দেশে ক্রমবর্ধিষ্ণু ইসলামফোবিয়া, মুসলিম বিদ্বেষের কথা আমাদের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল।

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ আশা করছেন নিউজিল্যান্ড শিগগিরই এসব সন্ত্রাসীকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

মালয়েশিয়ার বৃহত্তম গণতান্ত্রিক দল ক্ষমতাসীন জোট পাকাতান হারাপানের নেতা খ্যাতনামা নেতা আনোয়ার ইবরাহিম বলেছেন, হামলায় ক্ষতবিক্ষত হয়েছে মালয়েশীয়দের হৃদয়। বিশ্ব মানবতা ও শান্তির জন্য এটাকে এক ট্র্যাজেডি হিসেবে অভিহিত করেছেন তিনি।

গুলি করে নিরীহ মানুষকে হত্যার ঘটনার কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম মুসলিম দেশ ইন্দোনেশিয়া।

দেশটির প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো বলেছেন, ‘আমরা এই ধরনের সহিংস কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানাই।’

দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেতনো মারসুদি বলেছেন, ‘ইন্দোনেশিয়া সরকার হত্যার শিকার ও তাদের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছে। সেই সঙ্গে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা প্রকাশ করছে।’ এ হামলার সময় আল নূর মসজিদের ভেতরে ছয় ইন্দোনেশীয় মুসল্লি ছিল বলে জানিয়েছেন তিনি।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top