‘মোংলা বন্দরের সক্ষমতা দ্বিগুনেরও বেশি হবে’

Bagerhat-Photo-10.03.2020.jpg

‘নৌপরিবহন মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেজর (অব:) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম বলেছেন, অতিতে মোংলা বন্দরে কোন কন্টিনার টার্মিনাল ছিল না। এখন সেখানে দুটি কন্টিনার টার্মিনালের নির্মাণ কাজ চলছে। আরো দুটি কন্টিনার টার্মিনাল নির্মাণসহ বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষে আনুসাঙ্গিক যন্ত্রপাতি ক্রয়ের জন্য ৬ হাজার কোটি টাকা বরাদ্ধ হয়েছে এবং একনেকে সেটা অনুমোদন হয়েছে। এর ফলে মোংলা বন্দরের সক্ষমতা কমপক্ষে দ্বিগুনেরও বেশি বেড়ে যাবে।’ মোংলা বন্দরের আউটার বারে ৭১২ কোটি ব্যয়ে ড্রেজিং কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে মঙ্গলবার সকালে সুন্দরবনের হিরনপয়েন্টে সাংবাদিকদের তিনি একথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, মোংলা বন্দর আকারে ছোট হলেও এই উন্নয়নের ফলে চট্টগ্রামের বন্দরের অনেক চাপ সামলাতে পারবে। যার ফলে আমাদের দেশের অর্থনীতে একটা সুফল পড়বে।

এসময় সংসদীয় এই প্রতিনিধি দলের সাথে ছিলেন, পঞ্চগড়-১ আসনের সংসদ সদস্য মোঃ মাজাহারুল হক প্রধান, যশোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য রণজিৎ কুমার রায়, চাপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল, পটুয়াখালী- ৩ আসনের সংসদ সদস্য এস এম শাহজাদা, নৌপরিবহন মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব অনল চন্ত্র দাস, উপসচিব মো মনিরুজ্জামান মিয়া, মোংলা বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এস এম আবুল কালাম আজাদ। এসময় নৌপরিবহন মন্ত্রনালয় ও মোংলা বন্দরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

সংসদীয় এই প্রতিনিধি দল সোমবার (৯ মার্চ) মোংলা বন্দরের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প সরেজমিনে পরিদর্শন করে। পরে সোমবার বেলা ১২টায় সুন্দরবনের হিরণ পয়েন্টের উদ্দ্যেশ্যে যাত্রা করে। মঙ্গলবার প্রতিনিধি দল মোংলা বন্দরের জেটিসহ অন্যান্য উন্নয়ন প্রকল্প পরিদর্শন করে দুপুরে বন্দর ভবনের সম্মেলন কক্ষে ব্রিফিং সভায় মিলিত হয়।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!