ছাত্রদলের ৩ বছরের কমিটি ১৭ বছর পর বিলুপ্ত

154027_bangladesh_pratidin_bdp-Chhatro_Dol_Logo.jpg

নাটোরের সিংড়া উপজেলা, পৌর, কলেজ ও ইউনিয়ন ছাত্রদলের কমিটি তিন বছরের জন্য অনুমোদিত হলেও কেটে গেছে দীর্ঘদিন। কলেজ ও ইউনিয়ন কমিটিতে কেটে গেছে ১৭ বছর, পৌর কমিটিতে কেটেছে সাত বছর ও উপজেলা কমিটিতে কেটেছে ১০ বছর।

সর্বশেষ ২০০৩ সালে সিংড়া গোল-ই আফরোজ সরকারি কলেজ ও ১২টি ইউনিয়ন কমিটি গঠন করা হয়, ২০১৩ সালে পৌর ও ২০১০ সালে উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি গঠন করা হয়। তিন বছর মেয়াদ থাকলেও এভাবেই চলেছে দীর্ঘদিন।
অবশেষে এসব কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় সংগঠন। গত মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ-দপ্তর সম্পাদক আজিজুল হক সোহেল সাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নাটোর, সিরাজগঞ্জ ও পাবনা জেলার অধীন উপজেলা, পৌর, কলেজসহ সকল শাখা কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় আগামী ৪৫ দিনের মধ্যে তৃণমূল নেতাকর্মীদের প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণে নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনের মাধ্যমে সকল ইউনিট কমিটি পুনর্গঠন করা হবে।

সূত্র জানায়, সর্বশেষ ২০১০ সালে ওমর ফারুককে সভাপতি ও শামীম হোসেনকে সাধারণ সম্পাদক করে উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি এবং ২০১৩ সালে আতাউল গণি পলাশকে সভাপতি ও আশাফুদ্দৌলা আপেলকে সাধারণ সম্পাদক করে পৌর কমিটি গঠন করা হয়।

এরপরে আর কোন কমিটি গঠন করতে পারেনি ছাত্রদল। ২০০৩ সালে কলেজ ও ১২টি ইউনিয়ন কমিটি করা হয়। ১৭ বছরে সেসব শাখায় হয়নি আর কোনো কমিটি।

সদ্য বিলুপ্ত উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক শামীম হোসেন কমিটি বিলুপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দীর্ঘদিনের কমিটি কেন্দ্রীয় সংগঠন বিলুপ্ত করেছে। আগামীতে কেন্দ্রের নির্দেশে ৪৫ দিনের মধ্যে ছাত্রদলের কমিটি গঠন করা হবে।

উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল-মমিন বলেন, দীর্ঘদিন পরে নতুন নেতৃত্ব আসবে সেটা যেন বিশেষ কোনো শ্রেণির কাছে জিম্মি না হয়। ত্যাগী-নির্যাতিতদের মূল্যায়ন ও তৃণমূলের সমর্থনে নেতা নির্বাচিত করার দাবি জানান তিনি।

অপর সভাপতি প্রার্থী শাহাদত হোসেন মিন্টু বলেন, মাদকমুক্ত ও মেধাবী ছাত্রদের ছাত্রদল করার সুযোগ দিতে হবে। সৎ, পরিশ্রমী ও নির্যাতিতদের দায়িত্ব দেওয়ার দাবি জানান এই ছাত্রনেতা।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top