আশাশুনির হাবাশপুর বিলে খালকাটা কাজে অনিয়মের অভিযোগ

ASSASUNI-PHOTO-2-05-03-2019.jpg

আশাশুনি প্রতিনিধি, prabartan | প্রকাশিত: ২০:১৬, ০৫-০৩-১৯

সাতক্ষীরা: আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা ইউনিয়নের বাকড়ির বিল, ফিংড়ী ইউনিয়নের হবাশপুর, জোড়দিয়া, গোবরদাড়ি ও সর্বকাশেমপুর বিলে খাল খনন কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এব্যাপারে প্রতিকার প্রার্থনা করেছে এলাকার জমি মালিকসহ সর্বস্তরের মানুষ।

ব্লুগোল্ড এর উদ্যোগে ফিংড়ী ইউনিয়নের সর্বকাশেমপুর থেকে শুরু করে গোবরদাড়ি, জোড়দিয়া, হাবাশপুর হয়ে বুধহাটার বাকড়ির বিল দিয়ে বেউলা গাজীরমাঠের মৃত আছিরদ্দিনের বাড়ির কাছ পর্যন্ত দীর্ঘ সাড়ে ৪ কিঃমিঃ খাল পুনঃ খনন কাজ করা হচ্ছে। এসব খাল ৩৩ ফুট থেকে ৩৮ ফুট পর্যন্ত চওড়া হলেও দু’পাশের ব্যক্তি মালিকানা জমি (দেড় ফুট+দেড় ফুট) মোট ৩ ফুট করে অতিরিক্ত মাটি কেটে নিয়ে খাল খনন করা হচ্ছে। শুধু তাই নয় কর্তনকৃত মাটি ব্যক্তি মালিকানার জমিতে ফেলে বাধ দেওয়া হচ্ছে।

খালের গভীরতা হচ্ছে ৪ থেকে ৬ ফুট করে। ফলে এলাকার ইরি ব্লকের চাষীদের কারো কারো জমির ফসল মাঠির তলায় চলে যাচ্ছে, কারো বোরও মাটিতে ঢেকে যাচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিক কামরুল ইসলাম ও আলহাজ¦

আঃ সবুর জানান, তাদের জমি কেটে নিয়েছে, আবার কেটে নেওয়া মাটি তাদের জমিতে ফেলে ধান ক্ষেত নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। কামরুলের মটরের বোর মাটি দিয়ে ঢেকে দেওয়া হয়েছে অভিযোগ করে বলেন, অথচ ফককুর আলির জমির ২০ ফুট মাটি কাটা হয়নি। ফলে এলাকার বহু মালিক তাদের জমি খালে ঢুকিয়ে নেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা নিষেধ করলেও মানা হচ্ছেনা, প্রতিকারের কোন উপায়ও তারা খুজে পাচ্ছেননা।

এব্যাপারে ব্লুগোর্ল্ড কর্মসূচির সাথে জড়িত আঃ মান্নানের সাথে কথা বললে তিনি জানান, খাল খনন কাজ এলাকার স্বার্থে করা হচ্ছে। সেখানে দু’পাশে ৩ ফুট ব্যক্তি মালিকানার জমির মাটি কেটে পাশের জমিতে ফেলানো হচ্ছে। এটি ব্যক্তি স্বার্থ নয়, জনস্বার্থে করা হচ্ছে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top