স্ত্রীর নির্যাতনে মা-বাবার সামনেই প্রাণ দিলেন স্বামী

man_suicide_over_violation_by_wife_daily_bangladesh-2003040948.gif

টাঙ্গাইলের সখীপুরে স্ত্রীর নির্যাতনে মা-বাবার চোখের সামনে আশরাফ কাজী নামের এক স্বামী কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছেন।

মঙ্গলবার উপজেলার যাদবপুর ইউপির নলুয়া দক্ষিণপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। মৃত আশরাফ ওই পাড়ার ওমর কাজীর ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় ১৫ বছর আগে টাঙ্গাইল শহরে শ্রমিকের কাজ করার সময় তরুণী শাহনাজ আক্তারকে বিয়ে করেন আশরাফ। এ দম্পতির ঘরে এক ছেলে ও এক মেয়ের জন্ম নেয়। তবে তিন বছর আগে একই জেলার মির্জাপুরের গোড়াইয়ে শ্রমিক হিসেবে একটি বাইসাইকেল কারখানায় কাজ নেন আশরাফ। সেখানে রোকসানা নামের এক নারীর সঙ্গে প্রেম করে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। দ্বিতীয় বউ রোকসানাকে নিয়ে কারখানার পাশেই ভাড়া বাসায় বসবাস করছিলেন তিনি।

কিন্তু দ্বিতীয় বিয়ের খবর পেয়ে প্রথম স্ত্রী শাহনাজ বাবার বাড়ি চলে যান। এতে ১৫ দিন ধরে দ্বিতীয় স্ত্রী স্বামীকে নির্যাতন করা শুরু করেন। এক পর্যায়ে স্ত্রীর নির্যাতন সইতে না পেরে চাকরি ছেড়ে নিজ বাড়িতে পালিয়ে আসেন আশরাফ। তবে গত রোববার স্বামী আশরাফের খোঁজে নলুয়া দক্ষিণপাড়ায় চলে আসেন দ্বিতীয় স্ত্রী রোকসানা।

সেখানে স্বামীকে পেয়ে চাকরি ছাড়ার কারণ জানতে চেয়ে মাথার চুল টেনে ধরে নির্যাতন করেন দ্বিতীয় স্ত্রী। তখন মা-বাবা ও ভাইয়ের সামনে স্ত্রীর নির্যাতনে লজ্জায় পড়েন আশরাফ। তাৎক্ষণিক ঘর থেকে কীটনাশক এনে তাদের সামনেই পান করেন তিনি। এতে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

সখীপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের উপ-সহকারী কমিউনিটি চিকিৎসা কর্মকর্তা ফরিদ আহমেদ বলেন, স্বামীর নির্যাতনে স্ত্রীর বিষপান এখন পুরনো খবর। স্ত্রীর নির্যাতনে স্বামীরা হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে এটিই নতুন খবর।

সখীপুর থানার ওসি (তদন্ত) এএইচএম লুৎফুল কবির বলেন, নির্যাতন সব সময় বেআইনি কাজ। সেটি স্বামী বা স্ত্রী যেই করুক। নির্যাতনের অভিযোগ থানায় দিলে আমলে নেয়া হবে। এছাড়া স্ত্রীর নির্যাতনে আক্রান্ত আশরাফ থানায় অভিযোগ দেননি। অভিযোগ দিলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া যেত।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!