খুলনার ৩৫ ইউনিয়নে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা

Screenshot_2021-03-03-খুলনার-২৩-ইউনিয়ন-পরিষদের-ভোট-১১-এপ্রিল.png

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রথম ধাপে আগামী ১১ এপ্রিল খুলনার ৩৫ টিসহ দেশের ৩৭১ ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

বুধবার (৩ মার্চ) নির্বাচন ভবনে ৭৭ তম কমিশন সভা শেষে এ তফসিল ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার।

তিনি বলেন, এসব নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষসময় ১৮ মার্চ, মনোনয়পত্র বাছাই ১৯ মার্চ, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২৪ মার্চ। আর ভোটগ্রহণ ১১ এপ্রিল।

প্রথম ধাপে খুলনার পাঁচটি উপজেলার ৩৫টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।  এগুলো হলো, কয়রা উপজেলার সদর, মহারাজপুর, মহেশ্বরীপুর, উত্তর বেদকাশী, দক্ষিণ বেদকাশী, আমাদি ও বাগালী। দাকোপ উপজেলার সদর, বাজুয়া, কামারখোলা, তিলডাঙ্গা, সুতারখালী, লাউডোব, পানখালী, বানিশান্তা ও কৈলাশগঞ্জ। বটিয়াঘাটার গঙ্গারামপুর, বালিয়াডাঙ্গা, আমিরপুর। দিঘলিয়া উপজেলার সদর, সেনহাটি, গাজীরহাট, বারাকপুর, আড়ংঘাটা ও যোগীপোল। পাইকগাছার সোলাদানা, রাড়ুলী, গড়ইখালী, গদাইপুর, দেলুটি, চাঁদখালি, লতা, লস্কর, হরিঢালী ও কপিলমুনি।

২০১৬ সালের ২২ মার্চ থেকে জুন পর্যন্ত ছয় ধাপে দেশের চার হাজারের বেশি ইউপির নির্বাচন হয়েছিল দলীয় প্রতীকে (চেয়ারম্যান পদে)। এবারও চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকেই ভোট হচ্ছে। একাধিক ধাপে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইনে পরিষদ গঠনের জন্য কোনো সাধারণ নির্বাচনের দিন থেকে পাঁচ বছর পূর্ণ হওয়ার আগের ১৮০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার বিধান আছে। সে অনুযায়ী মার্চ থেকে ভোট শুরু হওয়ার কথা। কিন্তু চূড়ান্ত ভোটার তালিকা হালনাগাদে দেরি হওয়ায় ভোট পেছাতে হচ্ছে। আইনে বলা আছে, দৈবদুর্বিপাকজনিত বা অন্য কোনো কারণে নির্ধারিত পাঁচ বছর মেয়াদের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব না হলে সরকার লিখিত আদেশ দ্বারা, নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত কিংবা অনধিক ৯০ দিন পর্যন্ত যা আগে ঘটবে, সংশ্লিষ্ট পরিষদকে কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ক্ষমতা দিতে পারে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!