‘বৈশ্বিক চাপে’ই পাইলটকে মুক্তি দিচ্ছে পাকিস্তান

6820419520190301115610.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট, Prabartan | আপডেট: ০১:৫৮, ০১-০৩-১৯

আটক ভারতীয় বিমান বাহিনীর পাইলট অভিনন্দন বর্তমানকে ছেড়ে দিচ্ছে পাকিস্তান। সবকিছু ঠিক থাকলে শুক্রবার (০১ মার্চ) দুপুরে অমৃতসরের ওয়াঘা-আতারি সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের হাতে তাকে তুলে দেয়া হবে।

বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) ‘শান্তির বার্তা’ দিয়ে পাকিস্তানে আটক ভারতীয় পাইলটকে ছেড়ে দেয়ার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।  তবে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের দাবি, বৈশ্বিক চাপেই পাকিস্তান আটক অভিনন্দনকে ফেরত দিতে রাজি হয়েছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি (বুধবার) পাকিস্তান-ভারতের মধ্যে ‘বিমান যুদ্ধে’র পর বিষয়টি ‘বৈশ্বিক উদ্বেগে’র কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এরপরই পাকিস্তান-ভারতকে এ সমস্যা সমাধানে শান্তি ফেরানোর আহ্বান জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পসহ বিশ্ব নেতারা। সংযুক্ত আরব আমিরাতের ক্রাউন প্রিন্স শেখ মোহাম্মদ বিএন যায়েদ ইমরান খান ও মোদীকে ফোন করে এ উত্তেজনা প্রশমনের আহ্বান জানান।

একই সঙ্গে সৌদি আরবের বাণিজ্যমন্ত্রী ইসলামাবাদ সফর করেন এবং মোদীর সঙ্গে দেখা করেন দিল্লিতে নিযুক্ত সৌদি রাষ্ট্রদূত। তারা উত্তেজনা প্রশমনে দুই দেশকে সংলাপে বসার আহ্বান জানান। ওই সময় ভারতীয় কর্তৃপক্ষ জানায়, পাকিস্তানের সঙ্গে কোনো সমঝোতা নয়। পাইলটকে ফেরত দিতে হবে। যেহেতু সমঝোতার কোনো ইচ্ছা নেই, সেক্ষেত্রে কূটনৈতিকভাবেও এগিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা নেই।

এর আগে দিল্লিতে নিযুক্ত পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূতকে এ বিষয়ে ডেকে পাঠানো হয়। এ সময় ইসলামাবাদের কাছে অভিনন্দনকে দ্রুত ভারতে ফিরিয়ে দেয়ার দাবি জানায় দিল্লি।

পাকিস্তানের জাতীয় সংসদের অধিবেশনে দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও জানান, তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু ভালো সাড়া পাচ্ছেন না তিনি।

তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে ভারতীয় একজন পাইলট রয়েছেন। শান্তির স্বার্থে আমরা তাকে মুক্তি দিয়ে দেবো।’

তবে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি বলছে, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ‘শান্তির বার্তা দিতেই উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে মুক্তি দিচ্ছেন’ বললেও আসলে জেনেভা কনভেনশন ও বৈশ্বিক চাপে পড়েই পাইলটকে মুক্তি দিতে বাধ্য হচ্ছে পাকিস্তান।

সেই সঙ্গে বিশ্ব দরবারে নিজেদের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার সুযোগটাও ‘হাতছাড়া’ করছেন না সাবেক ক্রিকেটার এখানকার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী।

এদিকে ভিয়েতনামের হ্যানয়ে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে বৈঠকে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, পাকিস্তান-ভারতের মধ্যে আমরা কিছুটা সুসংবাদ পেয়েছি।  আমরা প্রথম থেকেই চাই দেশ দুটির মধ্যে  উত্তেজনা প্রশমিত হোক।

‘এবার  সেটাই করতে যাচ্ছে তারা( পাকিস্তান-ভারত)। দশকের পর দশক ধরে যে দ্বন্দ্ব চলছে তা মিটতে পারে বলে আমি আশাবাদী। এরই মধ্যে রাষ্ট্রসঙ্ঘেও চাপে  পড়ে পাকিস্তান। পুলওয়ামা-সহ ভারতের মাটিতে একাধিক আঘাত হানা জইশ-ই- মহম্মদের মাথা  মৌলানা মাসুদ আজাহারকে  রাষ্ট্রসঙ্ঘ ঘোষিত জঙ্গি ঘোষণা করার জন্য নিরাপত্তা  পরিষদে  আবেদন করেছে  আমেরিকা –সহ তিনটি দেশ।

এর আগে পাকিস্তানি পররাষ্ট্র মন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশী বলেন, বিমান বাহিনীর পাইলটকে মুক্তি দিলে যদি উত্তেজনা প্রশমিত  হয়। তাহলে পাকিস্তান সেটাও করতে চায়।

তবে তিনি এও বলেন, ‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে ফোনে বলতে প্রস্তুত, কিন্তু মোদীজি কী তৈরি?

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় ভারতের বিশেষায়িত নিরাপত্তা বাহিনী সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) গাড়িবহরে হামলা চালানো হয়।

এরপর জঙ্গিদের মদদ দেয়ার জন্য ইসলামাবাদকে অভিযুক্ত করে এর মোক্ষম জবাব দিতে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোররাতে পাকিস্তানের বালাকোট শহরে জঙ্গি গোষ্ঠী জইশ-ই-মোহাম্মদের প্রশিক্ষণ ক্যাম্পে হামলা চালায় ভারতীয় বিমান বাহিনী।

হামলায় প্রায় ৩০০ জঙ্গি নিহত হয় বলে দাবি করে ভারত। এর একদিন পরই অর্থাৎ বুধবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) ভারতের দু’টি যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত ও পাইলট উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে আটক করার দাবি করে পাকিস্তান।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top